সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১২:৪৩ অপরাহ্ন

আর ৬ (ফ্লু, প্লুরিসি, ক্যাটারা, ব্রঙ্কাইটিস, ইনফ্লুয়েঞ্জা ড্রপ)

আরোগ্য হোমিও হল / ৫৭ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশ কালঃ মঙ্গলবার, ৪ জুন, ২০২৪, ১১:৫২ অপরাহ্ন
আর ৬ (ফ্লু, প্লুরিসি, ক্যাটারা, ব্রঙ্কাইটিস, ইনফ্লুয়েঞ্জা ড্রপ)

Dr. Reckeweg R6 Influenza Drop
আর ৬ (ফ্লু, প্লুরিসি, ক্যাটারা, ব্রঙ্কাইটিস, ইনফ্লুয়েঞ্জা ড্রপ)
আরোগ্য হোমিও হল এ সবাইকে স্বাগতম। আশা করছি, সবাই ভালো আছেন। আজ আমরা এখানে আলোচনা করবো “

আর ৬ (ফ্লু, প্লুরিসি, ক্যাটারা, ব্রঙ্কাইটিস, ইনফ্লুয়েঞ্জা ড্রপ)” কম্বিনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধ নিয়ে আজকে জনবো, এটা সবার জানা জরুরী! তো আর কথা নয় – সরাসরি মূল আলোচনায়।
প্রস্তুত প্রণালী : Dr. Reckeweg R6/ জার্মান হোমিওপ্যাথি কম্বিনেশন ঔষধ।
ব্যবহার : আর – ৬ ইনফ্লুয়েঞ্জা ড্রপসটি ফ্লু, প্লুরিসি, ক্যাটারা, ব্রঙ্কাইটিসের ইনফ্লুয়েঞ্জা, ফাইবারস টিস্যু এবং সিরাস মেমব্রেনের তীব্র জ্বরজনিত প্রদাহে ব্যবহার করা হয়।
আর – ৬ ইনফ্লুয়েঞ্জা ড্রপসটি সম্পের্কে ধারণা : ফাইবারস টিস্যু এবং সিরাস মেমব্রেনের তীব্র জ্বরজনিত প্রদাহ। এতে রয়েছে ব্রায়োনিয়া (Bryonia) , ক্যাম্ফোরা (Camphora), কস্টিকাম (Causticum) ইত্যাদির মতো গুরুত্বপূর্ণ ঔষধ মিশ্রণ রয়েছে যা সিরাস মেমব্রেন ও তন্তুযুক্ত টিস্যুগুলির জ্বরের সাথে প্রদাহের উপর কাজ করে। এটিতে শরীরের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গে ব্যথা, চরম শারীরিক দুর্বলতার সংবেদন অথবা মানসিক অবসাদ (প্রণাম), অস্থিরতা, মাথাব্যথা, তীব্র ব্যথা এবং শুষ্ক জ্বলন্ত ত্বকের সাথে সাধারণ সংক্রমণের চিকিৎসার জন্য নির্দেশিত। এটি মিউকোসার জ্বরযুক্ত ক্যাটারা, গলবিল ও নাকের শ্লেষ্মা ঝিল্লির প্রদাহ (রাইনোফ্যারিঞ্জাইটিস), শ্বাসযন্ত্রের প্যাসেজের সংক্রামক ভাইরাল সংক্রমণের কারণে জ্বর, তীব্র ব্যথা ও ক্যাটারা (ইনফ্লুয়েঞ্জা), ব্রঙ্কাইটিউবে শ্লেষ্মা ঝিল্লির প্রদাহ, নিউমোনিয়া, প্লুরির প্রদাহ অর্থাৎ বক্ষের আস্তরণযুক্ত সিরাস মেমব্রেনের জোড়া (প্লুরিসি), পেরিকার্ডিয়ামের প্রদাহ (পেরিকার্ডাইটিস) ইত্যাদিও চিকিৎসা করে।
বায়ো কম্বিনেশন ২৫
এটি একটি নির্দিষ্ট সিরাস প্রতিকার, বিশেষ করে ইনফ্লুয়েঞ্জা। অঙ্গ-প্রত্যঙ্গে ব্যথা সহ সাধারণ সংক্রমণ, মানসিক অবসাদ, নিস্তেজ মাথাব্যথা, অস্থিরতা। শুষ্ক ও জ্বলন্ত ত্বক, তীব্র ব্যথা। উপরের বায়ু-পথের মিউকোসার জ্বরযুক্ত ক্যাটারা, রাইনোফ্যারিঞ্জাইটিস, ইনফ্লুয়েঞ্জা ব্রঙ্কাইটিস, নিউমোনিয়া, সিরাস মেমব্রেনের প্রদাহ, প্লুরিসি, পেরিকার্ডাইটিস, পেরিটোনাইটিস, পেট অথবা পেটের প্রদাহজনক প্রক্রিয়ার সময় পেরিটোনিয়ামের জ্বালা করে।

আরও পড়ুন –  আর ২৪ (প্লুরিসি, বুকের ব্যথা)

আর – ৬ ইনফ্লুয়েঞ্জা নির্ণয় এবং চিকিৎসা : ইনফ্লুয়েঞ্জা, সাধারণত ফ্লু নামে বেশি পরিচিত, ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাস দ্বারা সৃষ্টি একটি ভাইরাল শ্বাসযন্ত্রের অসুস্থতা। ইনফ্লুয়েঞ্জা নির্ণয় এবং চিকিৎসা সাধারণত বিভিন্ন পদ্ধতির সাথে জড়িত। ইনফ্লুয়েঞ্জার মতো ভাইরাল সংক্রমণের লক্ষণগুলি হল – কাশি, জ্বর, নাক বন্ধ হওয়া, হাঁচি, নাক দিয়ে পানি পড়া, ক্লান্তি, মাথাব্যথা, চোখে জল আসা, শরীরে ব্যথা ইত্যাদি। ইনফ্লুয়েঞ্জা একটি সংক্রামক রোগ যা ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাস দ্বারা সৃষ্টি হয়ে থাকে। এটি এটি সাধারণত ফ্লু নামে পরিচিত। এটি একটি ভাইরাল সংক্রমণ যা এটি সাধারণত গলা, নাক এবং ফুসফুসকে প্রভাবিত করে এবং এটি একটি সংক্রামক।
আর – ৬ ইনফ্লুয়েঞ্জা রোগ নির্ণয় :
(ক) ক্লিনিকাল মূল্যায়ন : একজন স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারী চিকিৎসক আপনার উপসর্গে চিকিৎসা ইতিহাস মূল্যায়ন করবেন এবং ইনফ্লুয়েঞ্জা সন্দেহজনক কিনা তা নির্ধারণ করতে আপনার শারীরিক পরীক্ষা করবেন।
(খ) দ্রুত ইনফ্লুয়েঞ্জা ডায়াগনস্টিক টেস্ট (RIDTS) : এই পরীক্ষাগুলি স্বাস্থ্যসেবাকারী দ্রুত ফলাফল প্রদান করতে পারে (১৫-৩০ মিনিটের মধ্যে)। তারা শ্বাসযন্ত্রের নমুনাগুলিতে ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাল প্রোটিনের উপস্থিতি আছে কিনা তা সনাক্ত করবেন।

আরও পড়ুন –   আর ৯ (ব্রঙ্কাইটিস, হুপিং কাশি, ব্রঙ্কিয়াল অ্যাজমা)

(গ) আণবিক পরীক্ষা: পলিমারেজ চেইন রিঅ্যাকশন (পিসিআর) পরীক্ষা পদ্ধিতি অত্যন্ত নির্ভুল এবং শ্বাসযন্ত্রের নমুনায় ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাসের জেনেটিক উপাদান সনাক্ত করতে ব্যবহারিত হয়। এই পরীক্ষাগুলি সাধারণত পরীক্ষাগারে করা হয় এবং ফলাফল প্রদান করতে কয়েক ঘন্টা সময় লাগতে পারে।
রোগীর প্রতি যত্ন: প্রচুর বিশ্রাম পাওয়া, হাইড্রেটেড থাকা এবং ওভার-দ্য-কাউন্টার ব্যথা উপশমকারী এবং জ্বর হ্রাসকারী (যেমন, অ্যাসিটামিনোফেন বা আইবুপ্রোফেন) ব্যবহার উপসর্গগুলি উপশম করতে সাহায্য করে। অন্যদের ব্যাক্তির সাথে যোগাযোগ এড়িয়ে চললে ভাইরাসের বিস্তার রোধ করা যায়।
এটা মনে রাখবেন ইনফ্লুয়েঞ্জা জটিলতা সৃষ্টি করতে পারে, বিশেষ করে উচ্চ-ঝুঁকিপূর্ণ ব্যক্তিদের যেমন ছোট শিশু, বয়স্ক প্রাপ্তবয়স্ক, গর্ভবতী মহিলা এবং যাদের অন্তর্নিহিত চিকিৎসা অবস্থা। যদি আপনার সন্দেহ হয় যে আপনার ইনফ্লুয়েঞ্জা আক্রান্ত হয়েছেন বা আপনার গুরুতর উপসর্গ রয়েছে, তাহলে অবিলম্বে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

আরও পড়ুন –  অ্যাডাল-৮৩ (কফ- ব্রঙ্কাইটিস সিরাপ)

আর – ৬ ড্রপসটির মুলউপাদান :  
(১) ইউপেটোরিয়াম পারফোলিয়েটাম D3 (Eupator Perfol D3)।
(২) ইউক্যালিপটাস গ্লোবুলাস D3 (Eucalyptus D3)।
(৩) ক্যাম্ফোরা D3 (Camphora D3)।
(৪) কস্টিকাম D6 (Causticum D6)
(৫) জেলসেমিয়াম D3 (Gelsemium D6)।
(৬) ব্যাপটিসিয়া D4 (Baptisia D4)।
(৭) ফেরাম ফসফোরিকাম D8 (Ferrum Phosphoric D8)।
(৮) ব্রায়োনিয়া D4 (Bryonia D4)।
(৯) সাবিডিলা D6 (Sabadilla D6)।

আরও পড়ুন –  এইচ আর -৩৪ ( ব্রঙ্কাইটিস -হাঁপানির চিকিৎসায় কার্যকর)

আর – ৬ ড্রপসটির উপাদানের কর্মের মোড : আর – ৬ ড্রপসটি ইনফ্লুয়েঞ্জা ওষুধের মূল বৈশিষ্ট্যগুলি ইনফ্লুয়েঞ্জার ভাইরাল সংক্রমণের লক্ষণগুলির চিকিৎসার জন্য নিম্নলিখিত উপাদানগুলি থেকে নেওয়া হয়েছে।
(ক) ইউপেটোরিয়াম পারফোলিয়েটাম (Eupator Perfol) : মানসিক অবসাদ (প্রণাম) সংবেদন সহ জ্বর, কাশি এবং শ্লেষ্মা শ্লেষ্মার কাঁচা অনুভূতি সহ উপরের বায়ুপথের ক্যাটারহাল প্রদাহ চিকিৎসা করে।
(খ) ইউক্যালিপটাস গ্লোবুলাস  (Eucalyptus) : সাধারণ স্নায়বিক উত্তেজনা, ত্বরিত শ্বাস, চরম ক্লান্তি ও অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের অনমনীয়তা, জ্বর এবং মাথাব্যথার চিকিৎসা করে।
(গ) ক্যাম্ফোরা (Camphora) : অ্যানালেপ্টিক (একজন ব্যক্তির স্বাস্থ্য বা শক্তি পুনরুদ্ধার করার প্রবণতা) এবং অ্যানালেপ্টিক শান্তকারী (একটি নিরাময়কারী প্রভাব রয়েছে) হিসাবে কাজ করে।
(ঘ) কস্টিকাম (Causticum) : এটি ইনফ্লুয়েঞ্জার মতো ভাইরাল সংক্রমণের লক্ষণ যেমন – মিউকোসার কাঁচা ভাব, মূত্রাশয়ের স্ফিঙ্কটারের দুর্বলতা ও ফাঁপা কাশির চিকিৎসা করে।

আরও পড়ুন –  আর্সেনিক আয়োড ৩x ( সর্দি, ব্রঙ্কাইটিসে কার্যকরী)

(ঙ) জেলসেমিয়াম (Gelsemium) : কনজেসটিভ মাথাব্যথা, কাঁপুনি, নিদ্রাহীনতা এবং মানসিক অবসাদ নিরাময় করে।
(চ) ব্যাপটিসিয়া (Baptisia) : টাইফয়েড জ্বর, অজ্ঞান অবস্থা (মূর্খতা), শক্তি এবং উদ্যমের অভাব (অলসতা), মিউকাস মেমব্রেনের শ্লেষ্মা ঝিল্লির জ্বালাএবং ঠান্ডার চিকিৎসা করে।
(ছ) ফেরাম ফসফোরিকাম (Ferrum Phosphoric) : এটি প্রদাহ ও জ্বরের প্রতিকার হিসাবে কাজ করে। এটি ব্রঙ্কি বা ব্রঙ্কিওলস (ব্রঙ্কোপনিউমোনিয়া) ফুসফুসের কম নাড়ি এবং প্রদাহেরও চিকিৎসা করে। উপরের শ্বাসযন্ত্রের ট্র্যাক্টের প্রদাহ এবং ব্রঙ্কোপনিউমোনিয়াতে বিশেষভাবে কার্যকর।
(জ) ব্রায়োনিয়া (Bryonia) : সাধারণ সর্দি, ইনফ্লুয়েঞ্জা (ক্যাটারহাল জ্বর), মাথাব্যথা, ছিদ্রযুক্ত ব্যথা, এবং সিরাস টিস্যুগুলির প্রদাহ সহ শ্বাসযন্ত্রের চিকিৎসা করে।
(ঝ) সাবিডিলা (Sabadilla) : এটি হাঁচি কেন্দ্রের কনভালসিক উদ্দীপনা। এটি ঠাণ্ডা লাগা ও বুকে কাশি, কেন্দ্রের জ্বলন্ত ঠান্ডা উদ্দীপনা, বুকে সেলাইয়ের চিকিৎসা করে।

আরও পড়ুন –  আর্সেনিক আয়োড ৩x ( সর্দি, ব্রঙ্কাইটিসে কার্যকরী)

আর – ৬ ইনফ্লুয়েঞ্জা ড্রপসটি সেবন বিধি : জ্বরের প্রবণতা সহ তীব্র অসুস্থতা,  প্রতি ১৫ থেকে ৩০ মিনিট পর পর একঢোক পরিমাণ পানিতে ১০ ফোঁটা ঔষধ মিশিয়ে সেব্য। যত তাড়াতাড়ি জ্বর কমে যায় (সাধারণত ১ থেকে ২ দিন পরে) এবং ঘাম দেখা দেয়, প্রতি ১ থেকে ২ ঘন্টা ১০ থেকে ১৫ ফোঁটা করে ওষুধ সেবন করুণ। জ্বর চলে গেলে, কয়েক দিন অন্তর ২ থেকে ৩ ঘন্টা অন্তর একঢোক পরিমাণ পানিতে মিশিয়ে ১০ ফোটা ঔষধ সেবন করুণ । ইনফ্লুয়েঞ্জা মহামারী প্রতিরোধে দিনে ৩ থেকে ৪ বার ১০ থেকে ১৫ ফোঁটা ঔষধ একঢোক পরিমাণ পানিতে মিশিয়ে সেবন করতে হবে।
চিকিৎসকের কিছু পরারর্শ : ওষুধ খাওয়ার সময় মুখের কোনো তীব্র গন্ধ যেমন কফি, পেঁয়াজ, শিং, পুদিনা, কর্পূর, রসুন ইত্যাদি এড়িয়ে চলুন। খাবার/পানীয়/অন্য কোনো ওষুধ এবং অ্যালোপ্যাথিক ওষুধের মধ্যে অন্তত আধা ঘণ্টার ব্যবধান রাখুন।

সতর্কতা : গর্ভবতী মা অথবা দুগ্ধদানকারী মারা ঔষধ সেবনের পূর্বে রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথি চিকিৎসকের পরামর্শে ঔষধ সেবন করা উত্তম।

আরও পড়ুন –  হিপার সালফ ৩x (ব্রঙ্কাইটিস, টনসিলে কার্যকরী)

শর্তাবলী : কম্বেনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধগুলি সাধারণত লক্ষণে উপর ভিভি করে ব্যবহার করা হয়। মনে রাখবেন হোমিওপ্যাথিক সদৃশ্য বিধান একটি চিকিৎসা ব্যবস্থা, বেশি লক্ষণে সঙ্গে মিলিলে তবেই ব্যবহার যোগ্য। তা না হলে অবস্থার উপর নির্ভর করে ফলাফল পরিবর্তিত হতে পারে।

পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া : হোমিওপ্যাথি সর্বোত্তম চিকিৎসা প্রদান করে কারণ এটি নিরাপদ এবং পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া মুক্ত।

ঔষধ সংরক্ষণ : সুস্ক ও শীতল স্থানে সুগন্ধ-দুগন্ধ, আলো-বাতাস থেকে দুরে, শিশুদের নাগালের বাহিরে রাখুন।

ঔষধের গুণগতমাণ : এটি একটি প্রাকৃতিক পণ্য, এটি কখনও কখনও সামান্য বৃষ্টিপাত অথবা মেঘলা হতে পারে, কিন্তু এটি পণ্যের গুণমান এবং এর কার্যকারিতা প্রভাবিত করে না। যদি এটি ঘটে তবে পণ্যটি ব্যবহার করার আগে ভালভাবে ঝাঁকি নিন। একবার আপনি সীলটি ভেঙে ফেললে, ওষুধগুলি দ্রুত ব্যবহার করা উচিত।

2454

আরোগ্য হোমিও হল এডমিন : আজকের আলোচনা এখানেই শেষ করলাম। আশা করি আপনারা বুঝতে পেরেছেন। নতুন কোনো স্বাস্থ্য টিপস নিয়ে হাজির হবো অন্য দিন। এই ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্যগুলো কেবল স্বাস্থ্য সেবা সম্বন্ধে জ্ঞান আহরণের জন্য। অনুগ্রহ করে রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথিক পরামর্শ নিয়ে ওষুধ সেবন করুন। চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ সেবনে আপনার শারীরিক বা মানসিক ক্ষতি হতে পারে। প্রয়োজনে, আমাদের সহযোগিতা নিন। এই ওয়েব সাইটটি কে কোন জেলা বা দেশ থেকে দেখছেন লাইককমেন্ট করে জানিয়ে দিন। যদি ভালো লাগে তবে শেয়ার করে আপনার বন্ধুদের জানিয়ে দিন। সবাই সুস্থ্য, সুন্দর ও ভালো থাকুন। নিজের প্রতি যত্নবান হউন এবং সাবধানে থাকুন। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।


এ জাতীয় আরো খবর.......
Design & Developed BY FlameDev