সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১২:৫৯ অপরাহ্ন

আর ৯ (ব্রঙ্কাইটিস, হুপিং কাশি, ব্রঙ্কিয়াল অ্যাজমা)

আরোগ্য হোমিও হল / ৫৯ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশ কালঃ রবিবার, ২ জুন, ২০২৪, ১২:২৩ পূর্বাহ্ন
আর – ৯ (ব্রঙ্কাইটিস, হুপিং কাশি, ব্রঙ্কিয়াল অ্যাজমা)

Dr.Reckeweg R9 asthma.bronchitis

আর – ৯ (ব্রঙ্কাইটিস, হুপিং কাশি, ব্রঙ্কিয়াল অ্যাজমা)

আরোগ্য হোমিও হল এ সবাইকে স্বাগতম। আশা করছি, সবাই ভালো আছেন। আজ আমরা এখানে আলোচনা করবো “ আর – ৯ (ব্রঙ্কাইটিস, হুপিং কাশি, ব্রঙ্কিয়াল অ্যাজমা)” কম্বিনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধ নিয়ে আজকে জনবো, এটা সবার জানা জরুরী! তো আর কথা নয় – সরাসরি মূল আলোচনায়।

প্রস্তুত প্রণালী :  Dr.Reckeweg R9/ জার্মান কম্বিনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধ।

ব্যবহার : আর -৯ ড্রপসটি ব্রঙ্কাইটিস-হুপিং-কাশি-শ্বাসনালী-অ্যাস্থমা-ক্যাটারহতে ব্যবহার করা হয়।

আর – ৯ ড্রপসটির ইঙ্গিত : উপরের বায়ু প্যাসেজের ক্যাটারহাল স্নেহ। Rhinolaryngopharyngitis, বিশেষ করে এটি সব পর্যায়ে ব্রঙ্কাইটিস এবং হুপিং কাশি। দীর্ঘস্থায়ী ব্রঙ্কাইটিস, শ্বাসনালী হাঁপানি, phthisis-এ কাশির জন্য কার্যকর।

2454

আর – ৯ ড্রপসটি সম্পের্কে ধারণা : জার্মান আর – ৯ হোমিওপ্যাথিক ওষুধের মূল উপাদানের মধ্যে রয়েছে বেলাডোনা (Belladonna), ব্রায়োনিয়া (Bryonia) ইত্যাদির মতো ঔষধ থাকায় কাশি, শ্লেষ্মা ঝিল্লির প্রদাহ সহ নাক বা গলায় শ্লেষ্মা তৈরি করে, এটি উপরের বায়ুপথে স্নেহ, শ্লেষ্মা ঝিল্লির প্রদাহের উপর কাজ করে। ব্রঙ্কিয়াল টিউবে (ব্রঙ্কাইটিস) ও সব পর্যায়ের হুপিং কাশি। এটি শ্বাসনালী হাঁপানি, দীর্ঘস্থায়ী ব্রঙ্কাইটিস, ফুসফুসীয় যক্ষ্মায় কাশির ফিট অনুরূপ রোগের জন্যও নির্দেশিত হয় (phthisis)|

আর – ৯ ড্রপ কাশির চিকিৎসা : কাশি এটি শ্বাসতন্ত্রের সংক্রমণের ফল। শ্বাস নালীর সংক্রমণের কারণে অনিয়মিত কাশি যা ধূমপান, শ্বাসরোধ, হাঁপানি ইত্যাদির কারণে হতে পারে। সাধারণত কাশি বারবার রিফ্লেক্স হয়ে থাকে যা বিরক্তিকর, নিঃসরণ, এটি জীবাণু থেকে বড় শ্বাস-প্রশ্বাসের পথ পরিষ্কার করতে সাহায্য করে। লক্ষণগুলির মধ্যে রয়েছে জ্বর, গলা ব্যথা, শরীরে ব্যথা, মাথাব্যথা, বমি, বমি বমি ভাব, সাইনাস ইত্যাদি। দীর্ঘস্থায়ী কাশির কারণগুলি মধ্যে রয়েছে হাঁপানি, ধূমপান, খড় জ্বর, অ্যালার্জি, সংক্রমণ ইত্যাদি।

আরও পড়ুন –  এন – ৭৬ হাঁপানীর (এ্যাজমা) রোগে কার্যকর

কাশির তীব্রতা হ্রাস করে :
(ক) মিউকোলাইটিক এজেন্ট – শ্বাসযন্ত্রের আস্তরণের শ্লেষ্মা স্তরের উপর তাদের প্রভাব বিস্তার করে এর ক্লিয়ারেন্স বাড়ানোর এর মুল উদ্দেশ্যে।
(খ) অ্যান্টিটিউসিভ এজেন্ট – একটি কেন্দ্রীয় অথবা একটি পেরিফেরাল প্রক্রিয়া বা উভয় মাধ্যমে কাশি প্রদান করে। দীর্ঘস্থায়ী ব্রঙ্কাইটিস রোগীদের জন্য অত্যান্ত দরকারী কিন্তু উপরের শ্বাসযন্ত্রের সংক্রমণে সীমিত।
(গ) প্রোট্রুসিভ এজেন্ট -secretions mobilizes নিঃসরণ সচল হয়।

আরও পড়ুন –  এইচ আর -৩৪ ( ব্রঙ্কাইটিস -হাঁপানির চিকিৎসায় কার্যকর)

আর – ৯ ড্রপসটির মুল উপাদান :
(১) ইপিকাকুয়ানা (Ipecacuanha)।
(২) কক্কাস ক্যাক্টাই D6 (Coccus Cacti D6)।
(৩) কাপরাম অ্যাসিটিয়াম D12 (Cuprum Aceticum D12)।
(৪) কোরালিয়াম রুব্রাম D12 (Corallium Rubrum D12)।
(৫) থাইমাস ভালগারিস D6 (Thymus Vulgaris D6)।
(৬) ড্রোসেরা রোটুন্ডিফোলিয়াD4 (Drosera Rotundifolia D4)।
(৭) বেলাডোনা D4 (Belladonna D4)।
(৮) ব্রায়োনিয়া D3 (Bryonia D3)।
(৯) স্পঞ্জিয়া D6 (Spongia D6)।
(১০) স্টিক্ট পিলম D6 (Sticta Pulmonaria D4)।

আরও পড়ুন –  এইচ আর – ৪৭ (হাঁপানি-ব্রঙ্কাইটিস চিকিৎসায় কার্যকর)

আর -৯ ড্রপসটির উপাদানের কর্মের মোড : আর – ৯ ড্রপের মূল বৈশিষ্ট্যগুলি নিম্নলিখিত উপাদানগুলি থেকে উদ্ভূত হয়েছে যা কাশির প্রাকৃতিক চিকিত্সা হিসাবে কাজ করে।

(ক) ইপিকাকুয়ানা (Ipecacuanha) : এটি শুষ্ক শ্বাসরোধকারী যা অজ্ঞান হয়ে যেতে পারে অথবা শ্বাসরোধে মৃত্যু ঘটাতে পারে) কাশির সাথে খিঁচুনি এবং বমি বমি ভাবের চিকিৎসা করে।

(খ) কক্কাস ক্যাক্টাই (Coccus Cacti) : এটি গলবিলের মিউকোষের অতি সংবেদনশীলতার চিকিৎসা করে। এটি স্পাসমোডিক কাশি (স্প্যাজমের সাথে) গ্লাইরি ও সান্দ্র কফের (গলা অথবা ফুসফুস থেকে বের হওয়া) এর সাথে সম্পর্কে সমস্যাগুলোর চিকিৎসা করে।

(গ) কাপরাম অ্যাসিটিয়াম (Cuprum Aceticum) : এটি স্প্যাসমোডিক কাশি, সান্দ্র শ্লেষ্মা ও কঠিন অথবা শ্রমযুক্ত শ্বাস-প্রশ্বাসের ডিস্পনিয়ার চিকিৎসা করে।
(ঘ) কোরালিয়াম রুব্রাম (Corallium Rubrum) : এটি কাশির জন্য প্রাকৃতিক চিকিৎসা যা শ্বাসরোধকারী ফিট সহ খিঁচুনি (স্প্যাজম) কাশির আক্রমণের উপশ্রম করে।

(ঙ) থাইমাস ভালগারিস (Thymus Vulgaris) : এটি কফের ওষুধ হিসাবে কাজ করে। এটি বায়ুপথে থুথু গোপন করে।

আরও পড়ুন –  এইচ আর – ০৬ (সব ধরণের কাশিতে কার্যকর)

(চ) ড্রোসেরা রোটুন্ডিফোলিয়া (Drosera Rotundifolia) : এটি রক্তের দুর্বল সঞ্চালন (সায়ানোসিস) ও শ্বাসরোধের কারণে ত্বকের নীলাভ বিবর্ণতা সহ খিঁচুনি কাশি, স্প্যাসমোডিক হাঁপানির চিকিৎসা করে।

(ছ) বেলাডোনা (Belladonna) : এটি অনিচ্ছাকৃত কাশি আক্রমণ, ঘেউ ঘেউ কাশি এবং ফাঁপা কাশি ও শ্লেষ্মা শুকনো ঝিল্লির চিকিৎসা করে।

(জ) ব্রায়োনিয়া (Bryonia) : এটি বুকে ব্যথা সহ শুষ্ক ও কঠোর কাশির চিকিৎসা করে।

(ঝ) স্পঞ্জিয়া (Spongia) : এটি ফাঁপা কাশি ও রাতে কাশির চিকিৎসা করে।

(ঞ) স্টিক্ট পিলম (Sticta Pulmonaria) : এটি নাক থেকে গলবিল ও ব্রঙ্কাইটিসের পরে শ্বাসনালী পর্যন্ত ঠান্ডা হতে সাহায্য করে। নাকের গোড়ার চাপেরও চিকিৎসা করে।

চিকিৎসকের পর্যালোচনা : ডা রুকমনি একজন সুপরিচিত হোমিওপ্যাথি চিকিৎসক বলেন, কাশি, বার্কিং কাশি, কাশির সাথে বমি, ব্রঙ্কাইটিসের জন্য
আর -৯ ড্রপ সুপারিশ করে।

আরও পড়ুন –  অ্যাডাল-৮৩ (কফ- ব্রঙ্কাইটিস সিরাপ)

কাশির জন্য অন্যান্য হোমিওপ্যাথি ঔষধ :
(১) ব্রংকাইটিস, শুষ্ক এবং স্প্যাসমোডিক কাশির জন্য Schwabe Alpha Coff Syrup।
(২) SBL Gi St obal সম্পন্ন সুগার ফ্রি কাশির সিরাপ।
(৩) মেডিসিন্থ কফিজ চিনিমুক্ত কাশির সিরাপ।
(৪) সব ধরনের কাশি, শ্বাসকষ্টের জন্য Medisynth Kofeez Cough Syrup।
(৫) অ্যালার্জিক শুষ্ক কাশি, স্প্যাসমোডিক কাশি – বিবিপি টুসিটল কাশি সিরাপ।
(৬) কাশি, হুপিং কাশি, হাঁপানির জন্য Adel 83 Bronchi Pertu Syrup।

আরও পড়ুন –  অ্যাডাল-৭ (সর্দি, কাশি, ল্যারিঞ্জাইটিস)

আর – ৯ ও সিরাপ ঔষধ সেবন বিধি :
হুপিং কাশির চিকিৎসার শুরুতে ঘন ঘন ডোজ, প্রতি ১ ঘন্টা ১০ ফোঁটা ঔষধ একঢোক পরিমান পানিতে শিশিয়ে সেবন করুণ। এক চা চামচ সিরাপ কাশির সিরাপ এবং কাশির ড্রপগুলি ঘন্টার পর ঘন্টা পর্যায়ক্রমে খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়। কাশি ফিট হওয়ার তীব্রতা এবং ফ্রিকোয়েন্সি হ্রাস করার পরে (সাধারণত ২-৩ দিনের মধ্যে) প্রতি ২ ঘন্টা পর পর ওষুধ সেবন করুণ। নির্দিষ্ট ক্যাটরসের চিকিৎসার ক্ষেত্রে- হুপিং কাশির পরে, প্রতিদিন ৪-৬ বার একঢোক জলে মিশিয়ে ১০-১৫ ফোঁটা ঔষধ বা এক চা চামচ (৫ মিলি) সিরাপ সেবন করুণ। তীব্র ব্রঙ্কাইটিস এবং ল্যারিঙ্গো-ফ্যারিঞ্জাইটিস: প্রতি ২-৩ ঘন্টা ১০-১৫ ফোঁটা ঔষধ অথবা এক চা চামচ সিরাপ।

চিকিৎসকের কিছু পরারর্শ : ওষুধ খাওয়ার সময় মুখের কোনো তীব্র গন্ধ যেমন কফি, পেঁয়াজ, শিং, পুদিনা, কর্পূর, রসুন ইত্যাদি এড়িয়ে চলুন। খাবার/পানীয়/অন্য কোনো ওষুধ এবং অ্যালোপ্যাথিক ওষুধের মধ্যে অন্তত আধা ঘণ্টার ব্যবধান রাখুন।

সতর্কতা : গর্ভবতী মা অথবা দুগ্ধদানকারী মারা ঔষধ সেবনের পূর্বে রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথি চিকিৎসকের পরামর্শে ঔষধ সেবন করা উত্তম।

শর্তাবলী : কম্বেনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধগুলি সাধারণত লক্ষণে উপর ভিভি করে ব্যবহার করা হয়। মনে রাখবেন হোমিওপ্যাথিক সদৃশ্য বিধান একটি চিকিৎসা ব্যবস্থা, বেশি লক্ষণে সঙ্গে মিলিলে তবেই ব্যবহার যোগ্য। তা না হলে অবস্থার উপর নির্ভর করে ফলাফল পরিবর্তিত হতে পারে।

পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া : হোমিওপ্যাথি সর্বোত্তম চিকিৎসা প্রদান করে কারণ এটি নিরাপদ এবং পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া মুক্ত।

ঔষধ সংরক্ষণ : সুস্ক ও শীতল স্থানে সুগন্ধ-দুগন্ধ, আলো-বাতাস থেকে দুরে, শিশুদের নাগালের বাহিরে রাখুন।

ঔষধের গুণগতমাণ : এটি একটি প্রাকৃতিক পণ্য, এটি কখনও কখনও সামান্য বৃষ্টিপাত অথবা মেঘলা হতে পারে, কিন্তু এটি পণ্যের গুণমান এবং এর কার্যকারিতা প্রভাবিত করে না। যদি এটি ঘটে তবে পণ্যটি ব্যবহার করার আগে ভালভাবে ঝাঁকি নিন। একবার আপনি সীলটি ভেঙে ফেললে, ওষুধগুলি দ্রুত ব্যবহার করা উচিত।

বায়ো কম্বিনেশন ২৫

আরোগ্য হোমিও হল এডমিন : আজকের আলোচনা এখানেই শেষ করলাম। আশা করি আপনারা বুঝতে পেরেছেন। নতুন কোনো স্বাস্থ্য টিপস নিয়ে হাজির হবো অন্য দিন। এই ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্যগুলো কেবল স্বাস্থ্য সেবা সম্বন্ধে জ্ঞান আহরণের জন্য। অনুগ্রহ করে রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথিক পরামর্শ নিয়ে ওষুধ সেবন করুন। চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ সেবনে আপনার শারীরিক বা মানসিক ক্ষতি হতে পারে। প্রয়োজনে, আমাদের সহযোগিতা নিন। এই ওয়েব সাইটটি কে কোন জেলা বা দেশ থেকে দেখছেন লাইককমেন্ট করে জানিয়ে দিন। যদি ভালো লাগে তবে শেয়ার করে আপনার বন্ধুদের জানিয়ে দিন। সবাই সুস্থ্য, সুন্দর ও ভালো থাকুন। নিজের প্রতি যত্নবান হউন এবং সাবধানে থাকুন। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।


এ জাতীয় আরো খবর.......
Design & Developed BY FlameDev