সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১১:৪৫ পূর্বাহ্ন

আর ৭৭ (ধূমপান বিরোধী ড্রপ)

আরোগ্য হোমিও হল / ৬৬ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশ কালঃ শনিবার, ৬ এপ্রিল, ২০২৪, ১:৪১ অপরাহ্ন
আর ৭৭ (ধূমপান বিরোধী ড্রপ)

Dr. Reckeweg R77/  আর ৭৭ (ধূমপান বিরোধী ড্রপ)
আর ৭৭ (ধূমপান বিরোধী ড্রপ)
R77 (Anti-Smoking Drops)
আরোগ্য হোমিও হল এ সবাইকে স্বাগতম। আশা করছি, সবাই ভালো আছেন। আজ আমরা এখানে আলোচনা করবো “ আর ৭৭ (ধূমপান বিরোধী ড্রপ)” কম্বিনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধ নিয়ে আজকে জনবো, এটা সবার জানা জরুরী! তো আর কথা নয় – সরাসরি মূল আলোচনায়।
প্রস্তুত প্রণালী : Dr. Reckeweg R77/  জার্মান কম্বিনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধ।
আর ৭৭ ড্রপটির ইঙ্গিত : এটি ধূমপায়ীদের প্ররিহারের জন্য, ধূমপায়ীদের হ্যাংওভার, অত্যধিক ধূমপানের কারণে মাথাব্যথা ও রক্তনালীর সংকোচন, বমি বমি ভাব, পেটে ব্যথা, কোষ্ঠকাঠিন্য, অ্যারিথমিক ধড়ফড় (হার্টের স্পন্দন), লিভারের সমস্যা, টাইম্পানাইটিস। সংযোজক টিস্যুগুলির কার্যকারিতার ব্যাঘাত। এন্ডোক্রিনামের ব্যাঘাত, ভাস্কুলার ব্যাঘাত ইত্যাদি।
আর ৭৭ ড্রপটির ধূমপান বিরোধী : এ ড্রপটি ধূমপান ছাড়ার প্রতিকূল প্রভাবগুলির চিকিৎসার জন্য ব্যবহৃত হয়। এতে রয়েছে অ্যাগারিকাস, ইচিনেসিয়া অ্যাংগুস্টিফোলিয়া ইত্যাদির মতো গুরুত্বপূর্ণ উপাদান যা ধূমপানবিরোধী ড্রপ হিসেবে কাজ করে। এটি ধূমপায়ীদের প্রত্যাহার, ধূমপানের কারণে মাথাব্যথা, ধূমপায়ীদের হ্যাংওভার এবং রক্তনালী সংকোচনের জন্য এটি নির্দেশিত হয়। পেটে ব্যথা, বমি বমি ভাব, অ্যারিদমিক ধড়ফড় (অনিয়মিত হৃদস্পন্দন), কোষ্ঠকাঠিন্য এবং লিভারের সমস্যার সমাধান করে। এটি টাইম্পানাইটিস (মধ্য কানের প্রদাহ দ্বারা সৃষ্ট বেদনাদায়ক সমস্যা), সংযোগকারী টিস্যুগুলির কার্যকারিতা, এন্ডোক্রিনাম এবং ভাস্কুলার ব্যাঘাতের চিকিৎসা করে।
আর ৭৭ ড্রপটি ধূমপান ত্যাগ করতে সাহায্য করে?
(১) দীর্ঘ সময় ধরে এটি নিয়মিত গ্রহণ করলে নিকোটিনের বিরুদ্ধে শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে।
(২) উপাদানগুলির সংমিশ্রণ নিকোটিনের নিয়মিত সরবরাহের কারণে সৃষ্ট ক্ষয়কারী প্রভাব থেকে (শরীরের ক্ষতি) প্রতিরোধ করে
(৩) স্বায়ত্তশাসিত স্নায়ুতন্ত্রের কার্যকারিতা পুনরুদ্ধার করে (শরীরে ভাল সঞ্চালনের দিকে পরিচালিত করে)।
(৪) শরীরে তামাক-প্ররোচিত প্রভাব (নিকোটিন অনুকরণীয় ভারসাম্য) ভেঙ্গে যায় যা প্রত্যাহারের লক্ষণগুলি হ্রাস করে যা ধূমপান ত্যাগ করা কঠিন করে তোলে।

পড়ুন –  এইচ আর – ৬৮ (ধূমপান থেকে মুক্তিতে কার্যকর)

আর ৭৭ ড্রপটি কেন ধূমপান বন্ধ?
ধূমপান ত্যাগ করার পরের প্রভাবগুলি প্রাথমি কভাবে নিকোটিনের সরবরাহ না করার কারণে শরীরের প্রত্যাহারের প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হতে পারে। ব্যক্তি আবার স্বাভাবিক হওয়ার আগে ৮ থেকে ১২ সপ্তাহের মধ্যে স্থায়ী হতে পারে। তবে এই সময়ে ব্যক্তিটি উপসর্গগুলিতে ভুগতে পারে যার মধ্যে রয়েছে বমি বমি ভাব, ক্লান্তি, তন্দ্রা, এবং অনিদ্রা, মাথাব্যথা, উদ্বেগ ও আরও তামাক খাওয়ার আকাঙ্ক্ষা। ধূমপানের কারণে মানবদেহের প্রায় সব অঙ্গেরই ক্ষতি করে। প্রায় ৮৭ শতাংশ ফুসফুসের ক্যান্সারে মৃত্যু হয় । এটি অন্যান্য ক্যান্সার এবং স্বাস্থ্য সমস্যা যেমন – ফুসফুসের রোগ, রক্তনালীর রোগ, হার্ট স্ট্রোক ইত্যাদির একটি প্রধান কারণ। ধূমপান সম্পর্কিত মৃত্যু প্রধানত দীর্ঘস্থায়ী বাধা পালমোনারি রোগ, ক্যান্সার এবং হৃদরোগের কারণেই ঘটে। ক্রনিক অবস্ট্রাকটিভ পালমোনারি ডিজিজের কারণে ১০ টির মধ্যে ৮টিই ধূমপানের কারণে ঘটে থাকে।
ধূমপান পুরুষের শুক্রাণুকে প্রভাবিত করতে পারে যা উর্বরতা হ্রাস করে এবং গর্ভপাত ও জন্মগত ত্রুটির ঝুঁকি বৃদ্ধি করে। ধূমপান দাঁত, মাড়ি, হাড়ের স্বাস্থ্য ইত্যাদিকেও প্রভাবিত করে। এটি টাইপ ২ ডায়াবেটিস, রিউমাটয়েড আর্থ্রাইটিস ইত্যাদির কারণ হয়ে থাকে। ধূমপানের অভ্যাস প্রত্যাহার করার সময় যেসব লক্ষণ দেখা দেয় যেমন – উদ্বেগ, ক্ষুধা, মাথাব্যথা, অস্থিরতা, বিরক্তি, মনোযোগে অসুবিধা, ক্ষুধামন্দা ইত্যাদি। ধূমপানের কারণে আরো খারাপ হয় সর্দি, ফ্লু, হাঁপানি, বুকের সংক্রমণ, নাকের প্রদাহ (রাইনাইটিস), হাইপারথাইরয়েডিজম, অপটিক নার্ভের প্রদাহ (অপটিক নিউরাইটিস) ইত্যাদি। গবেষণায় দেখা গেছে দীর্ঘমেয়াদী ধূমপায়ীর গড় আয়ু ১০ বছর কমে যায়।
আর ৭৭ ড্রপটির মুল উপাদান :
(১) এগারিকাস মাস্কেরিয়াস D5 (Agaricus Mus D5)।
(২) ইচিনেসিয়া অ্যাঙ্গুস্টিফোলিয়া D10 (Echinacea Angustifolia D10)।
(৩) ন্যাট্রিয়াম ক্লোরাটাম D2 (Natrium Chloratum D2)।
(৪) রবিনিয়া D6 (Robinia D6)।
(৫) ট্যাবাকাম D4 (Tabacum D4)।

অরও পড়ুন –  এন – ৭৭ (ধুমপান প্রতিরোধে কার্যকরী)

আর ৭৭ ড্রপটির কার্যকারিতা :
ড্রপগুলির মূল বৈশিষ্ট্যগুলি ধূমপান ছাড়ার প্রভাবগুলির চিকিৎসার জন্য নিম্নলিখিত উপাদানগুলি থেকে উদ্ভূত হয়েছে।
(ক) এগারিকাস মাস্কেরিয়াস (Agaricus Mus) :  এটি সাধারণত রক্তসঞ্চালন ব্যাঘাত, লিভার ফুলে যাওয়া এবং অনিয়মিত হৃদস্পন্দনের চিকিৎসা করে। এটি প্রলিপ্ত জিহ্বা, বমি বমি ভাব এবং পেট ব্যথারও চিকিৎসায় কাজ করে।
(খ) ইচিনেসিয়া অ্যাঙ্গুস্টিফোলিয়া (Echinacea Angustifolia) : এটি লিম্ফ্যাটিক সিস্টেমের প্রভাবের সাথে প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় এবং অভ্যন্তরীণ অ্যান্টিসেপটিককে শক্তিশালী করে। এটি ডিটক্সিফিকেশন প্রক্রিয়াকে উদ্দীপিত করতে সাহায্য করে।
(গ) ন্যাট্রিয়াম ক্লোরাটাম (Natrium Chloratum) : এটি ধূমপান ছাড়ার কারণে কিছু প্রভাব পড়ে যেমন – সাময়িক মাথাব্যথা, শুষ্ক এবং শক্ত মল সহ কোষ্ঠকাঠিন্য এবং অ্যারিদমিক ধড়ফড়ের চিকিৎসা করে।
(ঘ) রবিনিয়া (Robinia) :  এটি অতিরিক্ত ধূমপান এবং অ্যাসিড গ্যাস্ট্রাইটিসের কারণে পেটের ব্যথার চিকিৎসায় কার্যকর।
(ঙ) ট্যাবাকাম (Tabacum)  : এটি ধসে পড়া, ঘাম (ঘাম), ফ্যাকাশেতা, ঘাবড়ে যাওয়া (ভয়) ও ঠান্ডা অঙ্গগুলির সাথে তামাকের অপব্যবহারের বিরুদ্ধে এটি কাজ করে। নিউরালজিয়া (নার্ভের সাথে সাথে বিরতিহীন ব্যথা), ভার্টিগো (ক্লান্তির অনুভূতি), এবং বমি বমি ভাবেরও চিকিৎসা করে। এটি ধমনী ও পেরিফেরাল ব্যাঘাতের উপর বিশেষভাবে কার্যকরী।

অরও পড়ুন –  র‌্যাক্স নং- ৮৭  (ধুমপান নিবারক)

আর ৭৭ ঔষধ সেবন বিধি : আপনি ধূমপান ছেড়ে দিতে চান? জার্মানি থেকে অ্যান্টি স্মোকিং ড্রপ’ ডক্টর কীর্তি বিক্রম ধূমপানের হ্যাংওভার কাটিয়ে উঠতে এবং ধূমপানের খারাপ প্রভাব থেকে সম্পূর্ণ ডিটক্সিফিকেশনের জন্য আর ৭৭ ২০ ড্রপ, প্রতদিন সকাল-দুপুর-রাত্রে ১/২ কাপ জল মিশিয়ে দুই মাস খাওয়ার পরামর্শ দেন।
চিকিৎসকের কিছু পরারর্শ : ওষুধ খাওয়ার সময় মুখের কোনো তীব্র গন্ধ যেমন কফি, পেঁয়াজ, শিং, পুদিনা, কর্পূর, রসুন ইত্যাদি এড়িয়ে চলুন। খাবার/পানীয়/অন্য কোনো ওষুধ এবং অ্যালোপ্যাথিক ওষুধের মধ্যে অন্তত আধা ঘণ্টার ব্যবধান রাখুন।
সতর্কতা : গর্ভবতী মা অথবা দুগ্ধদানকারী মায়েরা ঔষধ সেবনের পূর্বে রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথি চিকিৎসকের পরামর্শে ঔষধ সেবন করা উত্তম।
শর্তাবলী : কম্বেনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধগুলি সাধারণত লক্ষণে উপর ভিভি করে ব্যবহার করা হয়। মনে রাখবেন হোমিওপ্যাথিক সদৃশ্য বিধান একটি চিকিৎসা ব্যবস্থা, বেশি লক্ষণে সঙ্গে মিলিলে তবেই ব্যবহার যোগ্য। তা না হলে অবস্থার উপর নির্ভর করে ফলাফল পরিবর্তিত হতে পারে।
পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া : হোমিওপ্যাথি সর্বোত্তম চিকিৎসা প্রদান করে কারণ এটি নিরাপদ এবং পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া মুক্ত।
ঔষধ সংরক্ষণ : সুস্ক ও শীতল স্থানে সুগন্ধ-দুগন্ধ, আলো-বাতাস থেকে দুরে, শিশুদের নাগালের বাহিরে রাখুন।
আরোগ্য হোমিও হল এডমিন : আজকের আলোচনা এখানেই শেষ করলাম। আশা করি আপনারা বুঝতে পেরেছেন। নতুন কোনো স্বাস্থ্য টিপস নিয়ে হাজির হবো অন্য দিন। এই ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্যগুলো কেবল স্বাস্থ্য সেবা সম্বন্ধে জ্ঞান আহরণের জন্য। অনুগ্রহ করে রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথিক পরামর্শ নিয়ে ওষুধ সেবন করুন। চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ সেবনে আপনার শারীরিক বা মানসিক ক্ষতি হতে পারে। প্রয়োজনে, আমাদের সহযোগিতা নিন।  এই ওয়েব সাইটটি কে কোন জেলা বা দেশ থেকে দেখছেন “লাইক – কমেন্ট” করে জানিয়ে দিন। যদি ভালো লাগে তবে “শেয়ার” করে আপনার বন্ধুদের জানিয়ে দিন।  সবাই সুস্থ্য, সুন্দর ও ভালো থাকুন। নিজের প্রতি যত্নবান হউন এবং সাবধানে থাকুন।  আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।


এ জাতীয় আরো খবর.......
Design & Developed BY FlameDev