সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১১:৪৮ পূর্বাহ্ন

আর ২৩ (একজিমা ড্রপ)

আরোগ্য হোমিও হল / ৭৪ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশ কালঃ বুধবার, ১৫ মে, ২০২৪, ১২:০৫ পূর্বাহ্ন

Dr.Reckeweg R23 (eczema drops)

R – 23 (eczema drops)

আর – ২৩ (একজিমা ড্রপ)

প্রস্তুত প্রণালী : Dr.Reckeweg R23 ড্রপসটি জার্মান কম্বিনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধ।

আরোগ্য হোমিও হল এ সবাইকে স্বাগতম। আশা করছি, সবাই ভালো আছেন। আজ আমরা এখানে আলোচনা করবো “ আর – ২৩ (একজিমা ড্রপ) ” কম্বিনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধ নিয়ে আজকে জনবো, এটা সবার জানা জরুরী! তো আর কথা নয় – সরাসরি মূল আলোচনায়।

ব্যবহার : আর – ২৩ ড্রপসটি একজিমা, পিম্পল, হারপিস, ফুসকুড়িরতে ব্যবহার করা হয়।

আর – ২৩ ড্রপসটির উপকারিতা : আর – ২৩ ড্রপসটি ত্বকের চুলকানি এবং ফুসকুড়ির চিকিৎসার জন্য নির্দেশিত। এতে বেশ কিছু হোমিওপ্যাথিক মিশ্রণ এই ড্রপগুলিতে পাওয়া যায়। এটিতে এপিস মেলিফিকা (Apis Mellifica), আর্সেন অ্যালবাম (Arsenic Album)
ইত্যাদির মতো গুরুত্বপূর্ণ ঔষধ থাকায় এটি দীর্ঘস্থায়ী এবং তীব্র একজিমায় কাজ করে (ত্বকের প্যাচগুলি রুক্ষ হয়ে যায় এবং ফোস্কা দিয়ে ফুলে যায় যা চুলকানি এবং রক্তপাত ঘটায়)। এটি ব্রণ, হার্পিস (হার্পিস ভাইরাস দ্বারা সৃষ্টি ভাইরাস ফোস্কা দিয়ে ত্বককে প্রভাবিত করে), এসচার (শুষ্ক, গাঢ় স্ক্যাব অথবা মৃত ত্বক থেকে দূরে পড়ে যাওয়া) এবং এটি ফুসকুড়িগুলির জন্যও নির্দেশিত।

বায়ো কম্বিনেশন ২৫

আর – ২৩ ড্রপসটির ইঙ্গিত : তীব্র এবং দীর্ঘস্থায়ী একজিমা, পিম্পল, হারপিস, ফুসকুড়ি, এসচার ইত্যাদি।

আর – ২৩ একজিমার চিকিৎসা : ত্বকের চুলকানি এবং ফুসকুড়ি একজিমার প্রধান লক্ষণগুলির মধ্যে এটি একটি। একজিমা সাধারণত দীর্ঘস্থায়ী রোগ। শুষ্ক জলবায়ু অঞ্চলে বসবাসকারী লোকদের একজিমা হওয়ার প্রবণতা বেশি। একজিমা সাধারণত ত্বকে স্ফীত বা জ্বালাপোড়া সৃষ্টি করে। অ্যাটোপিক ডার্মাটাইটিস হল সবচেয়ে এমন এক প্রকার রোগগুলিকে বোঝায় যেগুলি প্রায়শই খড় জ্বর এবং হাঁপানির মতো অন্যান্য অ্যালার্জিজনিত ত্বকের অবস্থার বিকাশের প্রবণতার সাথে উত্তরাধিকার সূত্রে প্রাপ্ত। একজিমা সৃষ্টিকারী কারণগুলি হল চাপ, ঠান্ডা অথবা শুষ্ক আবহাওয়া, ঘাম ও তাপ, শুষ্ক ত্বক ইত্যাদি। লক্ষণগুলির হল ফুসকুড়ি, চুলকানি, শুষ্ক, আঁশযুক্ত ও পুরু ত্বক। স্ট্রেস এবং অন্যান্য সংবেদনশীল কারণগুলি একজিমা সৃষ্টি করে না তবে এটি আরও খারাপ করতে পারে। একজিমার কারণ জানা যায়নি, তবে এটি শরীরের প্রতিরোধ ব্যবস্থা দ্বারা একটি বিরক্তিকর অতিরিক্ত সক্রিয় প্রতিক্রিয়ার সাথে যুক্ত হতে পারে। জেনেটিক্স, অস্বাভাবিক ইমিউন সিস্টেম, ত্বকের সংবেদনশীলতা, ত্বকের বাধা ত্রুটি, পরিবেশ ইত্যাদির মতো একজিমা হওয়ার জন্য নিম্নলিখিত কারণ হতে পারে।

আরও পড়ুন –  র‌্যাক্স নং- ৩২ (একজিমা)

আর – ২৩ ড্রপসটির মুল উপাদান :
(১) আর্সেনিক আলবাম D30 (Arsenic Album D30)।
(২) এপিস মেলিফিকা D30 (Apis Mellifica D30)।
(৩) রাস টক্সিকোডেনড্রন D30 (Rhus Toxicodendron D30)।

আরও পড়ুন –  অ্যাডাল-৭৮ (একজিমা, সোরিয়াসিস, ফোড়া)

আর – ২৩ ড্রপসটির পৃথক উপাদানগুলির কর্মের মোড : আর – ২৩ ড্রপসটির মূল বৈশিষ্ট্যগুলি ত্বকের চুলকানি এবং ফুসকুড়িগুলির চিকিৎসার জন্য নিম্নলিখিত উপাদানগুলি থেকে উদ্ভূত হয়েছে :।

(ক) আর্সেন অ্যালবাম (Arsenic Album) : এটি ত্বকের চুলকানি এবং ফুসকুড়ি, ত্বকে আঁশ তৈরির সাথে ত্বকের শুষ্কতা, ফোস্কা সাথে একজিমা যা পুঁজযুক্ত ত্বকে পরিণত হয় (পুঁজযুক্ত ত্বকে ছোট ফোস্কা অথবা পিম্পল) এবং এসচারের চিকিৎসা করে। এটি পুঁজ সহ খুশকি এবং পুরু আঁশযুক্ত একজিমা, মাথার ত্বকের চিকিৎসা করে।

(খ) এপিস মেলিফিকা (Apis Mellifica) : এটি ত্বকের ফোলা, চুলকানি ডার্মাটোসিস (যা ত্বকের রোগ, বিশেষ করে যেটি প্রদাহ সৃষ্টি করে না)

(গ) রাস টক্সিকোডেনড্রন (Rhus Toxicodendron) : erysipelatous (ত্বকের গভীর-লাল প্রদাহ ছড়িয়ে এটি জ্বরজনিত সংক্রামক রোগ) ত্বক, লালচে, ফোস্কা গঠন, এসচার এবং পুঁজ ইত্যাদির চিকিৎসা করে।

আরও পড়ুন –  এইচ আর – ২২ (একজিমা সোরিয়াসিসের চিকিৎসায় কার্যকর)

আর – ২৩ একজিমা চিকিৎসার অন্যান্য ওষুধ :
(ক) সোরিয়াসিস, পিম্পলস, একজিমা, চর্মরোগের জন্য অ্যাডেল – ১২ ডারকাট ড্রপ।
(খ) ত্বকের রোগ, একজিমা, প্রুরিটাসের জন্য – BBP Skin Ointment|
(গ) একজিমা ও ডার্মাটাইটিসের জন্য – Vashisht Graphites জেল।
(ঘ)লিউকোডর্মা, একজিমা, সোরিয়াসিসে – Bakson Baksoint 9 Cream|
(ঙ) সোরিয়াসিস, আঁশযুক্ত একজিমায় – ব্লুম ১০ ডার্মাসান।

আরও পড়ুন –  অ্যাডেল-২০ (ত্বক, অ্যালার্জি, একজিমা)

আর – ২৩ ড্রপসটি সেবন বিধি : ১০ থেকে ১৫ ফোঁটা ঔষধ খবারের ২০ মিনিট আগে আথবা খাবারের ২০ মিনিট পরে একঢোক পরিমাণ মতো পানিতে মিশিয়ে প্রতিদিন সকাল-দুপুর-রাত্রে (তিন বার) সেবন করতে হবে।ঔষধ খেয়ে কিছু উন্নতি হলে ডোজ কমিয়ে প্রতিদিন সকাল-দুপর-রাত (৩ বার) সেবন করুন এবং সম্পূর্ণ আররোগ্য না হওয়া পর্যন্ত এই চিকিৎসাটি দীর্ঘ সময়ের জন্য চালিয়ে যান।

চিকিৎসকের কিছু পরারর্শ : ওষুধ খাওয়ার সময় মুখের কোনো তীব্র গন্ধ যেমন কফি, পেঁয়াজ, শিং, পুদিনা, কর্পূর, রসুন ইত্যাদি এড়িয়ে চলুন। খাবার/পানীয়/অন্য কোনো ওষুধ এবং অ্যালোপ্যাথিক ওষুধের মধ্যে অন্তত আধা ঘণ্টার ব্যবধান রাখুন।

সতর্কতা : গর্ভবতী মা অথবা দুগ্ধদানকারী মারা ঔষধ সেবনের পূর্বে রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথি চিকিৎসকের পরামর্শে ঔষধ সেবন করা উত্তম।

শর্তাবলী : কম্বেনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধগুলি সাধারণত লক্ষণে উপর ভিভি করে ব্যবহার করা হয়। মনে রাখবেন হোমিওপ্যাথিক সদৃশ্য বিধান একটি চিকিৎসা ব্যবস্থা, বেশি লক্ষণে সঙ্গে মিলিলে তবেই ব্যবহার যোগ্য। তা না হলে অবস্থার উপর নির্ভর করে ফলাফল পরিবর্তিত হতে পারে।

আরও পড়ুন –  আর ২৬ (ড্রেনিং এবং স্টিমুলেটিং ড্রপস) 

পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া : হোমিওপ্যাথি সর্বোত্তম চিকিৎসা প্রদান করে কারণ এটি নিরাপদ এবং পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া মুক্ত।

ঔষধ সংরক্ষণ : সুস্ক ও শীতল স্থানে সুগন্ধ-দুগন্ধ, আলো-বাতাস থেকে দুরে, শিশুদের নাগালের বাহিরে রাখুন।

ঔষধের গুণগতমাণ : এটি একটি প্রাকৃতিক পণ্য, এটি কখনও কখনও সামান্য বৃষ্টিপাত অথবা মেঘলা হতে পারে, কিন্তু এটি পণ্যের গুণমান এবং এর কার্যকারিতা প্রভাবিত করে না। যদি এটি ঘটে তবে পণ্যটি ব্যবহার করার আগে ভালভাবে ঝাঁকি নিন। একবার আপনি সীলটি ভেঙে ফেললে, ওষুধগুলি দ্রুত ব্যবহার করা উচিত।

2454

আরোগ্য হোমিও হল এডমিন : আজকের আলোচনা এখানেই শেষ করলাম। আশা করি আপনারা বুঝতে পেরেছেন। নতুন কোনো স্বাস্থ্য টিপস নিয়ে হাজির হবো অন্য দিন। এই ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্যগুলো কেবল স্বাস্থ্য সেবা সম্বন্ধে জ্ঞান আহরণের জন্য। অনুগ্রহ করে রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথিক পরামর্শ নিয়ে ওষুধ সেবন করুন। চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ সেবনে আপনার শারীরিক বা মানসিক ক্ষতি হতে পারে। প্রয়োজনে, আমাদের সহযোগিতা নিন। এই ওয়েব সাইটটি কে কোন জেলা বা দেশ থেকে দেখছেন “লাইক – কমেন্ট” করে জানিয়ে দিন। যদি ভালো লাগে তবে “শেয়ার” করে আপনার বন্ধুদের জানিয়ে দিন। সবাই সুস্থ্য, সুন্দর ও ভালো থাকুন। নিজের প্রতি যত্নবান হউন এবং সাবধানে থাকুন। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।


এ জাতীয় আরো খবর.......
Design & Developed BY FlameDev