সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১২:০২ অপরাহ্ন

আর ৬৮ (দাদ, স্কিনে র‌্যাশ ড্রপ)

আরোগ্য হোমিও হল / ৭২ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশ কালঃ বুধবার, ১০ এপ্রিল, ২০২৪, ৫:০৯ অপরাহ্ন

Dr.Reckeweg R 68/ আর ৬৮ (দাদ, স্কিনে র‌্যাশ ড্রপ)
R68 (ringworm, skin rash drops)
আরোগ্য হোমিও হল এ সবাইকে স্বাগতম। আশা করছি, সবাই ভালো আছেন। আজ আমরা এখানে আলোচনা করবো “আর ৬৮ (দাদ, স্কিনে র‌্যাশ ড্রপ)” কম্বিনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধ নিয়ে আজকে জনবো, এটা সবার জানা জরুরী! তো আর কথা নয় – সরাসরি মূল আলোচনায়।
প্রস্তুত প্রণালী : Dr.Reckeweg R 68/ জার্মান কম্বিনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধ।
ব্যবহার : আর ৬৮ ড্রপসটি হারপিস জোস্টার, হারপিস ল্যাবিয়ালিস দাদ, স্কিনে র‌্যাশে ব্যবহার করা হয়।
আর ৬৮ ড্রপসটির উপকারিতা : আর ৬৮ ঔষধের মুল উপাদান রয়েছে যেমন – মেজেরিয়াম, নেট্রাম মিউরিয়েটিকাম ইত্যাদি ঔষধ মিশ্রণ থকায় যা হার্পিস জোস্টারে কাজ করে (এটিকে শিংলসও বলা হয় – ত্বকের বিস্ফোরণ সহ স্নায়ু গ্যাংলিয়ার বেদনাদায়ক তীব্র প্রদাহ) এবং বিভিন্ন ধরনের অবস্থায় কাজ করে।
আর ৬৮ হারপিস জোস্টা (দাদ) সম্পর্কে ধারণা : হার্পিস জোস্টারের লক্ষণের মধ্যে রয়েছে স্পর্শ সংবেদনশীলতা, ব্যথা, জ্বালাপোড়া, অসাড়তা, চুলকানি, তরল ভরা ফোস্কা, মাথাব্যথা, জ্বর, ক্লান্তি ইত্যাদি। দাদ স্নায়ু ও পার্শ্ববর্তী ত্বকের সংক্রমণকে বোঝায়। এটি হারপিস জোস্টার নামেও পরিচিত বা এটি ভেরিসেলা-জোস্টার ভাইরাস দ্বারা সৃষ্টি। এই ভাইরাসও চিকেন পক্সের কারণে হয়। চিকেন পক্সে আক্রান্ত হওয়ার পর, ভাইরাসটি স্নায়ু টিস্যুতে নিষ্ক্রিয় থাকে এবং কয়েক বছর পরে এটি দাদ হিসাবে পুনরায় প্রকাশ পেতে পারে। শিংলস হল ত্বকে একটি বেদনাদায়ক ফুসকুড়ি যা ত্বকের প্রভাবিত অংশে একটি স্ট্রিপ আকারে প্রদর্শিত হয়। এটি সাধারণত প্রাপ্তবয়স্কদের এবং আঘাত, চাপ অথবা অন্যান্য কারণে দুর্বল প্রতিরোধ ক্ষমতা সম্পন্ন ব্যক্তিদের মধ্যে দেখা যায়। দাদ সংক্রান্ত জটিলতার মধ্যে রয়েছে দৃষ্টিশক্তি হ্রাস, স্নায়বিক সমস্যা, ত্বকের সংক্রমণ ইত্যাদি।
আর ৬৮ ড্রপস/দাদ থেকে দ্রুত পুনরুদ্ধার ?
দাদ থেকে সেরে উঠতে যে সময় লাগে তা ব্যক্তি ভেদে পরিবর্তিত হতে পারে, তবে সাধারণত ৩ থেকে ৫ সপ্তাহ লাগে। আবার কিছু লোকের ক্ষেত্রে প্রায় ২ সপ্তাহের মধ্যে পুনরুদ্ধার করতে পারে। শিংলসের জন্য কোন নিরাময় নেই, তবে আপনার লক্ষণগুলি সহজ করার এবং আপনাকে আরও দ্রুত পুনরুদ্ধার করতে সাহায্য করার উপায় রয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে: মূলধারার অথবা বিকল্প ওষুধ যেমন – আর ৬৮ সেবন করা উচিত। অ্যান্টিভাইরাল ওষুধ, যেমন – অ্যাসাইক্লোভির, ভ্যালাসাইক্লোভির ও ফ্যামসিক্লোভির, দাদ হওয়ার পথকে ছোট করতে অথবা উপসর্গগুলির তীব্রতা দুর করে। আপনার মানব দেহে যদি ফুসকুড়ি দেখা দেওয়ার ৭২ ঘন্টার মধ্যে যদি আপনার দাদ ধরা পড়ে তবে আপনার চিকিৎসক সম্ভবত একটি অ্যান্টিভাইরাল ওষুধ লিখে দেবেন। দাদ ক্লান্তিকর হতে পারে, তাই প্রচুর বিশ্রাম নেওয়া গুরুত্বপূর্ণ। এটি আপনার শরীরকে ভাইরাসের সাথে লড়াই করতে বা ফুসকুড়ি নিরাময়ে সহায্য করবে।

আও পড়ুন –  কেন্ট ১৮ (চর্ম রোগে কার্যকর)

প্রচুর পরিমাণে তরল পান করতে হবে। হাইড্রেটেড থাকা সামগ্রিক স্বাস্থ্যের জন্য গুরুত্বপূর্ণ, আপনি অসুস্থ হলে এটি বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ তাই প্রচুর পরিমাণে তরল পান করুন যেমন – জল, রস এবং পরিষ্কার ঝোল। ঠান্ডা কম্প্রেস ব্যবহার করে। প্রভাবিত এলাকায় ঠান্ডা কম্প্রেস প্রয়োগ করা ব্যথা এবং চুলকানি উপশম করতে সাহায্য করতে পারে। ফুসকুড়ি পরিষ্কার ও শুকনো রাখুন। দিনে কয়েকবার সাবান ও জল দিয়ে ফুসকুড়ি ধুয়ে ফেলুন। ফোস্কা অথবা খোসা বাছাই করবেন না। ফুসকুড়ি আবরণ. যদি ফুসকুড়ি একটি দৃশ্যমান এলাকায় হয়, তাহলে আপনি এটিকে আঁচড় থেকে রক্ষা করার জন্য একটি ব্যান্ডেজ দিয়ে ঢেকে দিতে পারেন। যদি আপনার শিংলস সম্পর্কে কোন উদ্বেগ থাকে তবে অবশ্যই আপনার চিকিৎসকের সাথে কথা বলতে ভুলবেন না।

আরও পড়ুন –  এইচ আর – ২২ (একজিমা সোরিয়াসিসের চিকিৎসায় কার্যকর)

দ্রুত শিংলস থেকে পুনরুদ্ধার উপায় : এখানে কিছু অতিরিক্ত টিপস দেওয়া হলো যা আপনাকে আরও দ্রুত শিংলস থেকে পুনরুদ্ধার করতে সহায়তা করবে :
প্রচুর পরিমাণে স্বাস্থ্যকর খাবার খান। স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়বে এবং আপনার পুনরুদ্ধারের গতি বাড়াতে সাহায্য করবে।
একটু রোদ গ্রহণ করুণ কারণ সূর্যের আলো আপনার শরীরকে ভিটামিন ডি তৈরি করতে সাহায্য করে, যা এটি ইমিউন স্বাস্থ্যের জন্য অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ণ। মানসিক চাপ এড়িয়ে চলুন। স্ট্রেস আপনার ইমিউন সিস্টেমকে দুর্বল করতে পারে, তাই আপনার স্বাস্থ্য পুনরুদ্ধারের সময় স্ট্রেস পরিচালনা করার উপায়গুলি খুঁজে বের করা গুরুত্বপূর্ণ।

আরও পড়ুন –  বায়ো-কম্বিনেশন ২০ (চর্ম, ত্বক, ব্রণ, হারপিস)

আর ৬৮ ড্রপসটি মুল উপকরণ মিশ্রণ :
(১) মেজেরিয়াম D3 (Mesereum D3)।
(২) ন্যাট্রিয়াম ক্লোরাটাম D6 (Natrium Chloratum D6)।
(৩) রাস টক্সিকোডেনড্রন D4 (Rhus toxicodendron D4)।
(৪) ক্রোটন টিগলিয়াম D6 (Croton Tiglium D6)।

আরও পড়ুন –  অ্যাডাল-৭৮ (একজিমা, সোরিয়াসিস, ফোড়া)

আর ৬৮ ড্রপসটি এর মূল বৈশিষ্ট্যগুলি হারপিস জোস্টারের লক্ষণ এবং উপসর্গগুলির চিকিৎসার জন্য নি¤œলিখিত উপাদানগুলি থেকে উদ্ভূত হয়েছে :
(ক) মেজেরিয়াম (Mesereum) : এটি লাল অ্যারিওলা (একটি জায়গার চারপাশে লাল প্যাচ), জ্বলন্ত স্নায়ুতন্ত্র (এটি স্নায়ুর সাথে মাঝে মাঝে ব্যথা) ও চুলকানি সহ ত্বকের ভেসিকেলগুলির চিকিৎসা করে।
(খ) ন্যাট্রিয়াম ক্লোরাটাম (Natrium Chloratum) : এটি হারপিস জোস্টা, হারপিস লিবিয়ালিসের মতো লক্ষণের চিকিৎসা করে (হার্পিস ভাইরাস দ্বারা সৃষ্টি প্রদাহজনক ত্বকের একটি রোগ)।
(গ) রাস টক্সিকোডেনড্রন (Rhus toxicodendron) : এটি ত্বকে তীব্র চুলকানি ও ফুলা (সেরাস তরলযুক্ত বড় ফোস্কা) চিকিৎসা করে। এটি বেদনাদায়ক, লাল, জ্বলন্ত এবং সেলাই করা ত্বকেরও কার্যকর।

আরও পড়ুন –  র‌্যাক্স নং- ৩২ (একজিমা)

কমপ্লিমেন্টারি ওষুধ সেবন বিধি : হার্পিস হলে আর ৬৮+আর ৬৯ যা বুক বা ট্রাঙ্কের চারপাশে এর অবস্থান করে। আধা ঘন্টা অথবা প্রতি ঘন্টায় ১০ ফোঁটা ঔষধ একঢোক পরিমাণ মত পানি মিশিয়ে সেবন করুণ। কিছু উন্নতি হলে ডোজ কমিয়ে ২ থেকে ৩ ঘন্টায় ১০-১৫ ফোঁটা ঔষধ সেবন করতে হবে।
হার্পিস ফুসকুড়ি অথবা ফোলা লিম্ফ নোডের জন্য আর ৬৮+আর ১ একঢোক পরিমাণ মত জলে ১০ থেকে ১৫ ফোঁটা ঔষধ মিশিয়ে  প্রতিদিন সকাল ও রাত্রে সেবন করুণ।
হার্পিস জোস্টারের পরে ঘটে যাওয়া স্নায়ুতন্ত্রের জন্য আর ৬৯+আর ৭০। পোস্টহেরপেটিক নিউরালজিয়া মানে হারপিসের পরে স্নায়ু ব্যথা। শিঙ্গলের সাথে জড়িত তীব্র নিউরোপ্যাথিক ব্যথা সিন্ড্রোমেও রয়েছে। তীব্র এবং দীর্ঘস্থায়ী একজিমায়: আর ২৩ দেওয়া যেতে পারে।

আরও পড়ুন –  র‌্যাক্স নং- ৩৩ (এলার্জি)

আর ৬৯ ঔষধ সেবন বিধি : প্রাপ্ত বয়স্করা জন্য ১৫ থেকে ২০ ফোঁটা, শিশুরা ৭ থেকে ১০ ফোঁটা ঔষধ ১/৪ কাপ পানিতে মিশিয়ে দিনে ৩ বার অথবা রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসকের পরামর্শে সেবন করতে হবে।
চিকিৎসকের কিছু পরারর্শ : ওষুধ খাওয়ার সময় মুখের কোনো তীব্র গন্ধ যেমন কফি, পেঁয়াজ, শিং, পুদিনা, কর্পূর, রসুন ইত্যাদি এড়িয়ে চলুন। খাবার/পানীয়/অন্য কোনো ওষুধ এবং অ্যালোপ্যাথিক ওষুধের মধ্যে অন্তত আধা ঘণ্টার ব্যবধান রাখুন।
সতর্কতা : গর্ভবতী মা অথবা দুগ্ধদানকারী মায়েরা ঔষধ সেবনের পূর্বে রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথি চিকিৎসকের পরামর্শে ঔষধ সেবন করা উত্তম।
শর্তাবলী : কম্বেনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধগুলি সাধারণত লক্ষণে উপর ভিভি করে ব্যবহার করা হয়। মনে রাখবেন হোমিওপ্যাথিক সদৃশ্য বিধান একটি চিকিৎসা ব্যবস্থা, বেশি লক্ষণে সঙ্গে মিলিলে তবেই ব্যবহার যোগ্য। তা না হলে অবস্থার উপর নির্ভর করে ফলাফল পরিবর্তিত হতে পারে।

আরও পড়ুন –   শিশুর দেহে ঘা

পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া : হোমিওপ্যাথি সর্বোত্তম চিকিৎসা প্রদান করে কারণ এটি নিরাপদ এবং পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া মুক্ত।
ঔষধ সংরক্ষণ : সুস্ক ও শীতল স্থানে সুগন্ধ-দুগন্ধ, আলো-বাতাস থেকে দুরে, শিশুদের নাগালের বাহিরে রাখুন।
ঔষধের গুণগতমাণ : এটি একটি প্রাকৃতিক পণ্য, এটি কখনও কখনও সামান্য বৃষ্টিপাত অথবা মেঘলা হতে পারে, কিন্তু এটি পণ্যের গুণমান এবং এর কার্যকারিতা প্রভাবিত করে না। যদি এটি ঘটে তবে পণ্যটি ব্যবহার করার আগে ভালভাবে ঝাঁকি নিন। একবার আপনি সীলটি ভেঙে ফেললে, ওষুধগুলি দ্রুত ব্যবহার করা উচিত।
আরোগ্য হোমিও হল এডমিন : আজকের আলোচনা এখানেই শেষ করলাম। আশা করি আপনারা বুঝতে পেরেছেন। নতুন কোনো স্বাস্থ্য টিপস নিয়ে হাজির হবো অন্য দিন। এই ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্যগুলো কেবল স্বাস্থ্য সেবা সম্বন্ধে জ্ঞান আহরণের জন্য। অনুগ্রহ করে রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথিক পরামর্শ নিয়ে ওষুধ সেবন করুন। চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ সেবনে আপনার শারীরিক বা মানসিক ক্ষতি হতে পারে। প্রয়োজনে, আমাদের সহযোগিতা নিন।  এই ওয়েব সাইটটি কে কোন জেলা বা দেশ থেকে দেখছেন “লাইক – কমেন্ট” করে জানিয়ে দিন। যদি ভালো লাগে তবে “শেয়ার” করে আপনার বন্ধুদের জানিয়ে দিন।  সবাই সুস্থ্য, সুন্দর ও ভালো থাকুন। নিজের প্রতি যতœবান হউন এবং সাবধানে থাকুন।  আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।


এ জাতীয় আরো খবর.......
Design & Developed BY FlameDev