সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১১:৪১ পূর্বাহ্ন

আর ৬৭ (হার্টের দুর্বলতা)

আরোগ্য হোমিও হল / ২৭ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশ কালঃ শুক্রবার, ১২ এপ্রিল, ২০২৪, ১২:৪১ অপরাহ্ন
আর ৬৭ (হার্টের দুর্বলতা)

Dr. Reckeweg R 67/ আর ৬৭ (হার্টের দুর্বলতা)

আর ৬৭ (হার্টের দুর্বলতা)
 R 67 (Heart Debility)
আরোগ্য হোমিও হল এ সবাইকে স্বাগতম। আশা করছি, সবাই ভালো আছেন। আজ আমরা এখানে আলোচনা করবো “  আর ৬৭ (হার্টের দুর্বলতা)” কম্বিনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধ নিয়ে আজকে জনবো, এটা সবার জানা জরুরী! তো আর কথা নয় – সরাসরি মূল আলোচনায়।
প্রস্তুত প্রণালী : Dr. Reckeweg R 67/ জার্মান কম্বিনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধ।
ব্যবহার :  আর ৬৭ ড্রপসটি হাটর্ দুর্বল  তীব্র রক্ত সঞ্চালনের ব্যাঘাত, সংবহন শক, কার্ডিয়াক ব্যর্থতার পরে কার্ডিওজেনিক শক, সংক্রামক রোগ এবং আঘাতের পরে রক্ত চলাচলের ব্যাঘাত। দীর্ঘস্থায়ী রক্তসংবহন ব্যাঘাত, ভারটিগো এবং ভারসাম্যহীনতার সংবেদনের প্রবণতা ইত্যাদি।
আর ৬৭ ড্রপসটির ইঙ্গিত : তীব্র রক্তসঞ্চালন ব্যাঘাত, সংবহনমূলক শক, কার্ডিয়াক ব্যর্থতার পরে কার্ডিওজেনিক শক, সংক্রামক রোগ ও আঘাতের পরে রক্তসংবহন ব্যাঘাত। দীর্ঘস্থায়ী রক্তসংবহন ব্যাঘাত, ভারটিগো বা ভারসাম্যহীনতার সংবেদনের প্রবণতা ইত্যাদি।
বায়ো কম্বিনেশন ২৫ (অম্লতা, পেট ফাঁপা ও বদহজম)
আর ৬৭ সারকুলেটরি ডেবিলিটি ড্রপসটির উপকারিতা : আর ৬৭ ড্রপসটি হল একটি হোমিওপ্যাথিক পেটেন্ট যা আপনার রক্ত সঞ্চালন উন্নত করতে পারে। এতে অ্যামোনিয়াম কার্বনিক, অ্যাসিডের মতো মূল উপাদান থাকায় কার্ডিওজেনিক শক এর পরে কার্ডিয়াক ফেইলিওর এবং সঞ্চালন শক এর কারণে তীব্র সঞ্চালন ব্যাঘাতের চিকিৎসার জন্য হাইড্রোসায়ানিক ইত্যাদি। এটি আঘাত ও সংক্রামক রোগের পরে রক্ত সঞ্চালনের ব্যাঘাতে নির্দেশিত হয়, দীর্ঘস্থায়ী রক্ত সঞ্চালনের ব্যাঘাতের সাঙ্গে মাথা ঘোরার প্রবণতা (শীর ঘূর্ণায়মান এবং ভারসাম্য হারানোর সংবেদন), সিনকোপ (রক্তচাপ হ্রাসের কারণে অস্থায়ী চেতনা হ্রাস) এবং সংবেদনশীলতা ভারসাম্যহীনতা ইত্যাদি।

আর পড়ুন – অ্যাডাল-৫৪ (হার্ট অ্যাটাকের পর ব্যবহার)

আর ৬৭ সারকুলেটরি ডেবিলিটি ড্রপসটির লক্ষণ : দুর্বল রক্ত সঞ্চালনের লক্ষণগুলি হল – ঠান্ডা হাত অথবা পা, অসাড়তা, পায়ের ত্বক ফ্যাকাশে নীল রঙ, চুল পড়া, ক্ষতগুলি ধীরে ধীরে নিরাময় করে ফলে রক্ত সঞ্চালনে ব্যাঘাত ঘটতে পারে যেমন – রক্ত সঞ্চালন শক, রক্তসংবহন ধস, কার্ডিওজেনিক শক ইত্যাদি। রক্ত সঞ্চালন পতন বলতে নির্দিষ্ট ব্যর্থতা বোঝায়। সঞ্চালন যা পেরিফেরাল অথবা কার্ডিয়াক প্রকৃতির হতে পারে। সঞ্চালন পতনের সাধারণ কারণ সার্জারি অথবা আঘাত থেকে ট্রমা বা শক হতে পারে। অন্যান্য কারণগুলির মধ্যে হলো – রক্ত জমাট বাঁধা, হৃদরোগ, সমুদ্রের জল খাওয়া, অস্বাভাবিক রক্তচাপ ইত্যাদি। সংবহনমূলক শক এমন অবস্থাকে বোঝায় যেখানে অঙ্গ ও শরীরের টিস্যুগুলি পর্যাপ্ত রক্ত প্রবাহ পায় না যা চরম ক্ষেত্রে গুরুতর ক্ষতি অথবা মৃত্যু হতে পারে। কার্ডিওজেনিক শক হলো সেই অবস্থা যেখানে হৃৎপিণ্ড এমন পরিমাণে ক্ষতিগ্রস্ত হয় যেখানে শরীরের অঙ্গগুলিতে পর্যাপ্ত রক্ত সরবরাহ করতে পারে না। লক্ষণগুলি হলো – বুকে ব্যথা, প্রস্রাব কমে যাওয়া, দ্রুত স্পন্দন, প্রচণ্ড ঘাম, দ্রুত শ্বাস-প্রশ্বাস, মনোযোগের অভাব, হালকা মাথাব্যথা, অস্থিরতা, নাড়ি দুর্বল ইত্যাদি।
সঞ্চালন অগত্যা হলো একটি দুর্বল হৃদপিণ্ডের কারণে ব্যর্থ হয় না বরং ভালভ অথবা মায়োকার্ডিয়াম ছাড়া অন্য কিছু ত্রুটির কারণে একটি স্বাভাবিক হৃদপিণ্ডও অক্সিজেনের চাহিদা মেটাতে পারে না। অক্সিজেন পরিবহন হলো সঞ্চালনের কৌশলগত কাজ এবং এর ব্যর্থতা লক্ষণগুলি সৃষ্টি করতে পারে।

আর পড়ুন –  অ্যাডাল-৪৩ (হার্টের দুর্বলতা ড্রপস)

(ক) অপনার হাঁটার সময় পেশীতে আঘাত লাগে বা দুর্বল লাগে।
(খ)  আপনার ত্বকে পিন অথবা সূঁচ সংবেদন।
(গ) ঠান্ডা আঙ্গুল অথবা পায়ের আঙ্গুল।
(ঘ) বুক ব্যাথা।
(ঙ) ফোলা।
আর ৬৭ ড্রপসটির মুল উপকরণ :
(ক) অ্যামোনিয়াম কার্বোনিকাম D3 (Ammonium Carbonicum D3)
(খ) অ্যাসিডাম হাইড্রোসায়ানিকাম D6 (Acidum hydrocyanicum D6)
(গ) কার্বো ভেজিটেবিলিস D30 (Carbo vegetabilis D30)
(ঘ) ক্রোটালাস ক্যাসকাভেলা (Crotalus Cascavella)
(ঙ) ট্যাবাকাম Db (Tabacum Db)
(চ) ভিরেট্রাম এলবাম D4 (Veratrum Album D4)

আর পড়ুন –  এইচ আর – ৯২ (হার্টে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি করে )

আর ৬৭ ড্রপসটির পৃথক উপাদানগুলির কর্মের মোড :
আর ৬৭ ড্রপসটির মূল বৈশিষ্ট্যগুলি নিম্নোক্ত উপাদানগুলি থেকে প্রাপ্ত, যাতে দুর্বল রক্ত সঞ্চালনের লক্ষণগুলি চিকিৎসা করা হয়।
(১) অ্যামোনিয়াম কার্বোনিকাম (Ammonium Carbonicum) : ঘাম এবং মৃত্যুর ভয় সহ দুর্বল দ্রুত নাড়ি ইত্যাদিও চিকিৎসা করে।
(২) অ্যাসিডাম হাইড্রোসায়ানিকাম(Acidum hydrocyanicum) : এটি বরফ ঠাণ্ডা ঘাম (ঘাম) এবং আসন্ন শ্বাসকষ্টের সাথে কার্ডিওজেনিক শক। এটি আকস্মিক পতন ও সিনকোপকেও চিকিৎসা করে। বরফ ঠান্ডা ঘামের সাথে কার্ডিওজেনিক শক এবং আসন্ন শ্বাসকষ্ট। সিনকোপ এবং আকস্মিক পতন।
(৩) কার্বো ভেজিটেবিলিস (Carbo vegetabilis) : বুকে জ্বালাপোড়া, বুক ধড়ফড় (অনিয়মিত হৃদস্পন্দন), উদ্বেগ ও শ্বাসকষ্টের মতো দুর্বল রক্ত সঞ্চালনের লক্ষণগুলির চিকিৎসা করে। এটি ঠাণ্ডা ঘাম, ফ্যাকাশে (অস্বাস্থ্যকর ফ্যাকাশে চেহারা) এবং সায়ানোসিস (দুর্বল রক্ত সঞ্চালনের কারণে ত্বকের নীল বিবর্ণতা) প্রায় অদৃশ্য নাড়ি। এটি রক্ত সঞ্চালনের (পুনরুদ্ধারকারী) হিসাবে কাজ করে।

আর পড়ুন –  কেন্ট ০৬ (হার্টের সমস্যয় কার্যকর)

(৪) ক্রোটালাস ক্যাসকাভেলা (Crotalus Cascavella) : এটি হৃদযন্ত্রের ধাক্কা দেওয়ার প্রবণতা সহ কার্ডিয়াক  অপ্রতুলতা যা বিশেষত ব্যাকটেরিয়াল টক্সিনের কারণে সৃষ্টি হয় তার চিকিৎসা করে। এটি পোস্ট ইনফেকটিভ জেনিসিসের সংবহন সংক্রান্ত ব্যাঘাতেরও চিকিৎসা করে।
(৫) ট্যাবাকাম (Tabacum) : মুখে ফ্যাকাশে ভাব, বমি বমি ভাবসহ ঠান্ডা ঘামের সাথে প্রায় অদৃশ্য নাড়ির চিকিৎসা করে।
(৬) ভিরেট্রাম এলবাম (Veratrum Album) : সঞ্চালনের মোট ধাক্কা, অদৃশ্য নাড়ি, ঠান্ডা ঘাম, উঠতে গিয়ে অজ্ঞান হয়ে যাওয়া (অর্থোস্ট্যাটিক) এবং ঠান্ডা নীল হাত, উঠতে গিয়ে অজ্ঞান হয়ে যাওয়া (অর্থোস্ট্যাটিক)চিকিৎসা করে।

আর পড়ুন –  এন – ০৩ (হার্টের ড্রপস)

আর ৬৭ ঔষধ সেবন বিধি : প্রাপ্ত বয়স্করা জন্য ১৫ থেকে ২০ ফোঁটা, শিশুরা ৭ থেকে ১০ ফোঁটা ঔষধ ১/৪ কাপ পানিতে মিশিয়ে দিনে ৩ বার অথবা রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসকের পরামর্শে সেবন করতে হবে।
চিকিৎসকের কিছু পরারর্শ : ওষুধ খাওয়ার সময় মুখের কোনো তীব্র গন্ধ যেমন কফি, পেঁয়াজ, শিং, পুদিনা, কর্পূর, রসুন ইত্যাদি এড়িয়ে চলুন। খাবার/পানীয়/অন্য কোনো ওষুধ এবং অ্যালোপ্যাথিক ওষুধের মধ্যে অন্তত আধা ঘণ্টার ব্যবধান রাখুন।
সতর্কতা : গর্ভবতী মা অথবা দুগ্ধদানকারী মারা ঔষধ সেবনের পূর্বে রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথি চিকিৎসকের পরামর্শে ঔষধ সেবন করা উত্তম।

আর পড়ুন –  র‌্যাক্স নং- ৫০ (হৃদযন্ত্রের দুর্বলতা)

শর্তাবলী : কম্বেনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধগুলি সাধারণত লক্ষণে উপর ভিভি করে ব্যবহার করা হয়। মনে রাখবেন হোমিওপ্যাথিক সদৃশ্য বিধান একটি চিকিৎসা ব্যবস্থা, বেশি লক্ষণে সঙ্গে মিলিলে তবেই ব্যবহার যোগ্য। তা না হলে অবস্থার উপর নির্ভর করে ফলাফল পরিবর্তিত হতে পারে।
পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া : হোমিওপ্যাথি সর্বোত্তম চিকিৎসা প্রদান করে কারণ এটি নিরাপদ এবং পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া মুক্ত।
ঔষধ সংরক্ষণ : সুস্ক ও শীতল স্থানে সুগন্ধ-দুগন্ধ, আলো-বাতাস থেকে দুরে, শিশুদের নাগালের বাহিরে রাখুন।
ঔষধের গুণগতমাণ : এটি একটি প্রাকৃতিক পণ্য, এটি কখনও কখনও সামান্য বৃষ্টিপাত অথবা মেঘলা হতে পারে, কিন্তু এটি পণ্যের গুণমান এবং এর কার্যকারিতা প্রভাবিত করে না। যদি এটি ঘটে তবে পণ্যটি ব্যবহার করার আগে ভালভাবে ঝাঁকি নিন। একবার আপনি সীলটি ভেঙে ফেললে, ওষুধগুলি দ্রুত ব্যবহার করা উচিত।
আরোগ্য হোমিও হল এডমিন : আজকের আলোচনা এখানেই শেষ করলাম। আশা করি আপনারা বুঝতে পেরেছেন। নতুন কোনো স্বাস্থ্য টিপস নিয়ে হাজির হবো অন্য দিন। এই ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্যগুলো কেবল স্বাস্থ্য সেবা সম্বন্ধে জ্ঞান আহরণের জন্য। অনুগ্রহ করে রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথিক পরামর্শ নিয়ে ওষুধ সেবন করুন। চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ সেবনে আপনার শারীরিক বা মানসিক ক্ষতি হতে পারে। প্রয়োজনে, আমাদের সহযোগিতা নিন।  এই ওয়েব সাইটটি কে কোন জেলা বা দেশ থেকে দেখছেন “লাইক – কমেন্ট” করে জানিয়ে দিন। যদি ভালো লাগে তবে “শেয়ার” করে আপনার বন্ধুদের জানিয়ে দিন।  সবাই সুস্থ্য, সুন্দর ও ভালো থাকুন। নিজের প্রতি যত্নবান হউন এবং সাবধানে থাকুন।  আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।


এ জাতীয় আরো খবর.......
Design & Developed BY FlameDev