মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:২৯ পূর্বাহ্ন

এইচ আর – ৩১ (অস্টিওআর্থারাইটিস, রিউম্যাটিজম এবং গাউট চিকিৎসায় কার্যকর)

আরোগ্য হোমিও হল / ৫৬ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশ কালঃ সোমবার, ৯ অক্টোবর, ২০২৩, ৫:৫৭ অপরাহ্ন

এইচ আর – ৩১ (অস্টিওআর্থারাইটিস, রিউম্যাটিজম এবং গাউট চিকিৎসায় কার্যকর)

ক্যাটাগরি : কম্বিনেশন হোমিওপ্যাথিক ঔষধ, পাকিস্তান।

প্রস্তত প্রণালী : এইচআর মাসুদ/হোমিওপ্যাথিক ফার্মাকোপিয়া অনুযায়ী প্রস্তুত।

ব্যবহার : এইচ আর – ৩১ অস্টিওআর্থারাইটিস, রিউম্যাটিজম এবং গাউট চিকিৎসায় ব্যবহার করা হয়।

এইচ আর – ৩১ ঔষধের বর্ণনা :

এইচ আর – ৩১ (RHEUMA) অস্টিওআর্থারাইটিস, রিউম্যাটিজম এবং গাউট চিকিৎসায় অত্যান্ত কার্যকরী।

ক/ এইচ আর – ৩১ হাড়, জয়েন্ট এবং কশেরুকার অভিযোগ নিয়ন্ত্রণ করে।

খ/ অস্টিওআর্থারাইটিসের কারণে জয়েন্টগুলির প্রদাহে ব্যবহার করা হয়।

গ/ নিষ্ক্রিয়তার সময়কালের পরে কঠোরতা থেকে মুক্তি দিতে পারে ।

ঘ/ পেশী প্রসারিত বা কোমলতা সহায়ক হিসাবে কাজ করে।

ঙ/ বাত এবং গাউট ব্যবহার করা হয়।

আরও পড়ুন – কেন্ট ৩০ মলম (রিমিটয়েড ও আর্থ্রাইটিসে কার্যকর)

এইচ আর – ৩১ ভূমিকা :

অস্টিওআর্থারাইটিস : আর্থ্রাইটিসের হল একটি সাধারণ রূপ যা এক বা একাধিক জয়েন্টের (হাঁটু, নিতম্ব ও হাতের মতো) তরুণাস্থিতে অবক্ষয়জনিত পরিবর্তন এবং ইহার সংলগ্ন হাড়ের ঘনত্ব এবং অতিরিক্ত বৃদ্ধি দ্বারা চিহ্নিত করা হয়।

এইচ আর – ৩১ কারণ :

অস্টিওআর্থারাইটিসের ঝুঁকি বাড়াতে পারে এমন কারণগুলির নিন্ম রুপ :

১/ জয়েন্টে আঘাত।

২/ হাড়ের বিকৃতি।

৩/ জয়েন্টে বারবার চাপ।

৪/ স্থূলতা (স্বাস্থ্য বান)

৫/ জেনেটিক্স

এইচ আর – ৩১ লক্ষণ : অস্টিওআর্থারাইটিসের লক্ষণগুলি প্রায়শই ধীরে ধীরে প্রকাশ করে এবং সময়ের সাথে সাথে আরও খারাপ হয়। অস্টিওআর্থারাইটিসের লক্ষণ ও উপসর্গগুলি নিন্ম রুপ :

ক/ ব্যথা- আক্রান্ত জয়েন্টগুলি চলাফেরার সময় অথবা পরে ব্যথা হতে পারে।

খ/ কোমলতা- আপনি যখন হালকা চাপ প্রয়োগ করেন তখন আপনার জয়েন্ট কোমল বোধ অনুভব করবেন।

গ/ দৃঢ়তা- জয়েন্টের শক্ততা জাগ্রত হওয়ার পরে বা নিষ্ক্রিয় হওয়ার পরে সবচেয়ে বেশি লক্ষণ দেখা যায়।

ঘ/ নমনীয়তা হারানো- আপনার জয়েন্টটিকে তার সম্পূর্ণ পরিসরের গতির মাধ্যমে সরাতে পারবেন না।

ঙ/ হাড় spurs- – হাড়ের এই অতিরিক্ত বিটগুলি, যা শক্ত পিণ্ডের মতো মনে হয়, আক্রান্ত জয়েন্টের চারপাশে গঠন করতে পারে।

চ/ ফোলা- এটি জয়েন্টের চারপাশে নরম টিস্যু প্রদাহের কারণে ফুলতে  পারে।

ছ/ গ্রেটিং সংবেদন- জয়েন্ট ব্যবহার করার সময় একটি ঝাঁকুনি সংবেদন অনুভব করতে পারেন এবং আপনি পপিং বা কর্কশ শুনতে পারেন।

গাউট বা বাত : রিউম্যাটিজম হল পেশী, জয়েন্ট বা সংযোগকারী টিস্যুতে বেদনাদায়ক প্রদাহের একটি অবস্থা। রিউম্যাটিক অবস্থা পেশী ও জয়েন্টগুলিতে প্রদাহ সৃষ্টি করে এবং তরুণাস্থি এবং হাড়ের ক্ষতি হতে পারে।

আরও পড়ুন – এন – ১১ (রিউমেটিজম বাত ও গেটে বাত রোগে ড্রপস)

এইচ আর – ৩১ কারণ :

রিউম্যাটিজম হল বিভিন্ন কারণের দ্বারা সৃষ্ট এবং বাত রোগের ধরণের উপর নির্ভর করে যেমন –

ক/ ধূমপান করা।

খ/ অটোইমিউন অবস্থা।

গ/ স্থূলতা বা স্বাস্থ্যবান।

ঘ/ খাদ্য

ঙ/ নিয়মিত ব্যায়াম না করা।

চ/ জেনেটিক্স বা বংশগত।

ছ/ খেলাধুলার সময় আঘাত লাগা।

জ/ পুনরাবৃত্তিমূলক গতির সঙ্গে পেশা।

ঞ/ বার্ধক্য জীবন।

এইচ আর – ৩১ লক্ষণ : সাধারণ কিছু মৌলিক লক্ষণগুলোর মধ্যে রয়েছে কিছুর নির্দিষ্ট লক্ষণ যেমন –

১/ স্থানীয় ব্যথা

২/ জয়েন্টর পেশীতে শক্ততা, ফোলাভাব এবং কোমলতা।

৩/ জয়েন্টর পেশীতে লালভাব এবং উষ্ণতা।

৪/ গতিশীলতা কম।

৫/ সল্প জ্বর।

আরও পড়ুন – এন – ৭৩ (সন্ধিবাত রোগে কার্যকরী)

গাউট : গাউট হল এক ধরনের আর্থ্রাইটিস বা বাত যা প্রদাহ সৃষ্টি করে, সাধারণত একটি জয়েন্টে, যা হঠাৎ করেই শুরু হয়। জয়েন্টে ইউরিক অ্যাসিডের স্ফটিক জমা হওয়ার কারণে গাউটি আর্থ্রাইটিস হয়ে থাকে।

গাউট বা বাতের উপসর্গ এবং লক্ষণ :

ক/ ত্বকের নিচে নডিউল।

খ/ জয়েন্টের লালভাব দেখা যায়।

গ/ জয়েন্টগুলোতে ফোলা থাকে।

ঘ/ জয়েন্টের সংযোগে ব্যথা।

ঙ/ জয়েন্টের উষ্ণতা বা গরম থকে।

এইচ আর – ৩১ ইঙ্গিত : জয়েন্টে ব্যথা, এক বা একাধিক জয়েন্টে ফোলাভাব ও কোমলতা, ঘুমানো বা বসে থাকার মতো নিষ্ক্রিয়তার পরে শক্ত হয়ে যায়, ব্যথার ফ্লেয়ার আপ, জয়েন্ট ব্যবহার করার পরে প্রদাহ, কুঁচকে যাওয়া বা হাড়ের শব্দে কার্যকর। ঘষা, লালভাব এবং জয়েন্টগুলি উষ্ণতা। যে কেউ এই উপসর্গগুলির মধ্যে যেকোনো একটি অনুভব করলে অবিলম্বে এইচ আর – ৩১ সেবন করুন।

এইচ আর – ৩১ ফার্মাকোলজি : এইচ আর – ৩১ বেদনানাশক হিসাবে কাজ করে এবং বাত ও জয়েন্টের ব্যথা উপশম করে। ইহার সংযোগকারী টিস্যু পুনর্র্নিমাণ করে, জয়েন্টের ব্যথা উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস করে। অস্টিওআর্থারাইটিস (ঙঅ) এবং রিউমাটয়েড আর্থ্রাইটিস (জঅ) এর প্রদাহ কমায়। এছাড়াও লিউকোট্রিয়েনস দমন করে। নির্দিষ্ট প্রদাহজনক জেন বন্ধ করে। এই গাউট ওষুধটি ইউরিক অ্যাসিড সংশ্লেষণকে বাধা দেয় এবং এটি বেশ কয়েকটি পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার সাথে যুক্ত হয়েছে, যেমন – রক্তনালীর প্রদাহ, ত্বকের বিস্ফোরণ, এবং লিভারের বিষাক্ততা। এর স্ট্রেস-বিরোধী কার্যকলাপ জয়েন্ট এবং টেন্ডনকে শান্ত করে। এইচ আর – ৩১ জয়েন্টগুলিতে রক্ত সঞ্চালনে সাহায্য করে এবং খিঁচুনি দ্বারা ধ্বংস হওয়া রক্তনালীগুলির অখণ্ডতা পুনরুদ্ধার করে। উল্লেখযোগ্যভাবে গ্লাইকোসামিনোগ্লাইকানের অবক্ষয় কমাইতে সাহায্য করে এবং জয়েন্টগুলিকে রক্ষা করে।

আরও পড়ুন – র‌্যাক্স নং- ১২ (বাতব্যাথা)

এইচ আর – ৩১ ঔষধ সেবন বিধি : ২০ ফোঁটা ঔষধ একঢোক সমপরিমান পানির সাথে শিশিয়ে প্রতি ৬ ঘন্টা পর পর সেবন করতে হবে। শিশুরা ৫ ফোঁটা ঔষধ একঢোক সমপরিমান পানির সাথে শিশিয়ে প্রতি ৬ ঘন্টা পর পর সেবন করতে হবে। সুস্থ হলে প্রতিদিন ৩ বার সেবন করুন। অথবা রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসকের পরামর্শে সেবন করুন।

বিশেষে দ্রষ্টব্য : চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া কোন ঔষধ খাবেন না এতে শারীরিক ও মানুষিক ক্ষতি হতে পারে। ঔষধ সেবনে পুর্বে একজন রেজিষ্টার্ড চিকিৎসকের পরামর্শে ঔষধ সেবন করুণ। লক্ষণগুলি অব্যাহত থাকলে, আপনার চিকিৎসকের সাথে পরামর্শ করুন।

বিশেষ সর্তকর্তা : গর্ভবতী মহিলারা রেজিষ্টর্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ঔষধ সেবন সম্পন্ন নিষেধ।

পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া : এইচ আর – ৩১ ঔষধ সেবনে কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া জানা নাই।

ঔষধ সংরক্ষণ : সুগন্ধ-দুগন্ধ থেকে দুরে, শীতল ও শুস্ক স্থানে, শিশুদের নাগালের বাহিরে রাখুন।

আরোগ্য হোমিও হল এডমিন : এ ওয়েব সাইটের মুল উদ্দেশ্যে হচ্ছে স্বাস্থ্য সম্পের্ক কিছু দান করা বা তুলে ধরা। সাধারণ মনুষের উপকার হবে। বিশেষ করে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক ও ছাত্ররা উপকৃত হবেন। এ ওয়েব সাইটে থাকছে পুরুষ স্বাস্থ্য বা যৌনস্বাস্থ্য, গাইনি স্বাস্থ্য, শিশুস্বাস্থ্য, মাদার টিংচার, সিরাপ, বম্বিনেশন ঔষধ, বাইকেমিক ঔষধ, হোমিওপ্যাথিক বই, ইউনানি, হামদর্দ, হারবাল, ভেজষ, স্বাস্থ্য কথা ইত্যাদি। এই ওয়েব সাইটটি কে কোন জেলা বা দেশ থেকে দেখছেন “লাইক – কমেন্ট” করে জানিয়ে দিন। যদি ভালো লাগে তবে “শেয়ার” করে আপনার বন্ধুদের জানিয়ে দিন।


এ জাতীয় আরো খবর.......
Design & Developed BY FlameDev