শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ০৩:৪৬ অপরাহ্ন

এইচ আর – ২৩ (অর্শ্ব রোগে কার্যকর)

আরোগ্য হোমিও হল / ৬৮ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশ কালঃ শুক্রবার, ১৩ অক্টোবর, ২০২৩, ৬:০৩ অপরাহ্ন

এইচ আর – ২৩ (অর্শ্ব রোগে কার্যকর)

ক্যাটাগরি : কম্বিনেশন হোমিওপ্যাথিক ঔষধ, পাকিস্তান।

প্রস্তত প্রণালী : এইচআর মাসুদ/হোমিওপ্যাথিক ফার্মাকোপিয়া অনুযায়ী প্রস্তুত।

ব্যবহার : এইচ আর – ২৩ (হেমোরহাইন) রক্তপাত এবং রক্তপাতহীন পাইলসের চিকিৎসায় ব্যবহার করা হয়।

এইচ আর -২৩ রক্তপাত ও অ-ব্লিডিং পাইলসে বর্ণনা :

ক/ এইচ আর – ২৩ অর্শ্বরোগের চিকিৎসার জন্য একটি সর্বোত্তম নির্দেশিত প্রতিকার হিসাবে কাজ করে।

খ/ রক্তপাত ও রক্তপাতহীন পাইলসের ক্ষেত্রে অত্যান্ত কার্যকর।

গ/ মলদ্বারের চারপাশে কোষ্ঠকাঠিন্যর কারণে ব্যথা উপশম করে।

ঘ/ শিরাস্থ রক্ত সঞ্চালন নিয়ন্ত্রণ করে।

ঙ/ হেমোরয়েডের কারণে পিঠের নিচের অংশে এবং স্যাক্রামে ব্যথা দুর করে।

চ/ এছাড়াও পেটের অভিযোগ ও অস্থিরতার জন্য ভাল কাজ করে।

আরও পড়ুন –  এন – ১৩ (অর্শ্ব পাইলস ড্রপস)

এইচ আর -২৩ অর্শ্বরোগের ভূমিকা : হেমোরয়েডস, যা পাইলস বা অর্শ্বরোগ নামেও পরিচিত, মলদ্বার এবং মলদ্বারের নীচের অংশে ফুলে যাওয়া শিরা। যখন এই মলদ্বারের দেয়াল প্রসারিত হয়, বিরক্তকর অনুভুতি হয়। প্রত্যেকেরই হেমোরয়েডস বা পাইলস, বালিশের মতো শিরার গুচ্ছ থাকে যা মলদ্বার এবং মলদ্বারের সর্বনিম্ন অংশে আস্তরণকারী শ্লেষ্মা ঝিল্লির নীচে থাকে। হেমোরয়েডস বা পাইলস অবস্থার বিকাশ ঘটে যখন সেই শিরাগুলি ফুলে যায়। পায়ে ভেরিকোজ শিরাগুলি ছড়িয়ে পড়ে।

দুই ধরনের হেমোরয়েড বা পাইলস রোগ আছে যেমন-

অভ্যন্তরীণ হেমোরয়েডস : যা মলদ্বারে নীচের দেখা দেয়, ইহা সাধারণত ব্যথাহীন হয়, এমনকি যখন তারা রক্তপাত ঘটায়। উদাহরণস্বরূপ, টয়লেট পেপারে উজ্জ্বল লাল রক্ত বা টয়লেট বাটিতে ফোঁটা ফোঁটা দেখুন। অভ্যন্তরীণ হেমোরয়েডগুলিও প্রল্যাপস হতে পারে, বা মলদ্বারের বাইরে প্রসারিত হতে পারে, যা বিভিন্ন সম্ভাব্য সমস্যার সৃষ্টি করে।

বাহ্যিক হেমোরয়েডস : যা মলদ্বারের চারপাশে ত্বকের নিচে বিকশিত হয়। এই ধরনের হেমোরয়েডগুলি সবচেয়ে অস্বস্তিকর, কারণ ওভারলেড ত্বক বিরক্ত হয়ে যায় এবং ক্ষয় হয়ে যায়। যদি বাহ্যিক হেমোরয়েডের ভিতরে রক্ত জমাট বাঁধে তবে ব্যথা হঠাৎ এবং তীব্র হতে পারে।

এইচ আর – ২৩ অর্শ্বরোগের কারণ : মলদ্বারের চারপাশের শিরা চাপে প্রসারিত হয় ও ফুলে উঠতে পারে। মলদ্বারে নীচের চাপ বৃদ্ধির কারণে শিরা ফোলা (অর্শ্বরোগ) হতে পারে:

১/ মলত্যাগের সময় স্ট্রেনিং হলে।

২/ টয়লেটে দীর্ঘক্ষণ বসে থাকে।

৩/ দীর্ঘস্থায়ী ডায়রিয়া ও কোষ্ঠকাঠিন্য

৪/ স্থূলতা বা মোটাসোটা।

৫/ গর্ভাবস্থা কোষ্ঠকাঠিন্য হলে।

৬/ পায়ূ সঙ্গম করলে।

৭/ কম ফাইবার খাদ্য খেলে।

আরও পড়ুন –  র‌্যাক্স নং- ১৩ (পাইলস এবং অর্শ)

এইচ আর – ২৩ অর্শ্বরোগের লক্ষণ:

ক/ মলত্যাগের সময় রক্তপাত হলে।

খ/ পায়ু অঞ্চলে চুলকানি বা জ্বালা করে।

গ/ ব্যথা বা অস্বস্তি বোধ করে।

ঘ/ মলদ্বারের চারপাশে ফোলা থাকে।

ঙ/ আপনার মলদ্বারের কাছে একটি পিণ্ড থাকে।

এইচ আর – ২৩ অর্শ্বরোগের ইঙ্গিত : পাইলস হল হেমোরয়েড যা মলদ্বারে কাছে ফুলে যায়। পাইলস এবং হেমোরয়েডের প্রধান কারণ হল আঁশযুক্ত খাবার না খাওয়া, দীর্ঘস্থায়ী কোষ্ঠকাঠিন্য, ডায়রিয়া, গর্ভাবস্থা, স্থূলতা, স্পাইনাল কার্ডে আঘাত, এইচ আর -২৩ সম্ভবত অভ্যন্তরীণ এবং বাহ্যিক পাইলস ও হেমোরয়েডের ক্ষেত্রে অত্যান্ত কার্যকর। এটি মলদ্বারের চারপাশে শক্ত পিণ্ড, অন্ত্রের পূর্ণতা, মলত্যাগের সময় উজ্জ্বল লাল রক্ত নিঃসরণ, মলত্যাগের সময় ব্যথা, মলদ্বারের ব্যথা এবং জ¦ালাপোড়াতে উপকারী।

এইচ আর – ২৩ অর্শ্বরোগের ফার্মাকোলজি : এইচ আর – ২৩ শিরাস্থ সঞ্চালনের উপর কিছুটা শক্তিশালী প্রভাব ফেলার ফলে কনজেস্টিভ এবং অ্যান্টি-এনজার্জমেন্ট প্রতিকার হিসাবে কাজ করে। এটি মলদ্বারের জড়িততার উপর নির্ভর করে। রিফ্লেক্স ডিজঅর্ডারে দরকারী যেমন – স্প্যাসমোডিক হাঁপানি, মাথাব্যথা, শ্বাসকষ্ট ও মাথা ঘোরা এবং বিঘ্নিত হজম। এইচ আর – ২৩ মলদ্বারের ফোলাভাব কমাতে সাহায্য করে এবং স্ফিঙ্কটার পেশীর খিঁচুনি শিথিল করে। এটি হেমোস্ট্যাটিক হিসাবে কাজ করে এবং রক্তক্ষরণ অর্শ্বরোগের ক্ষেত্রে এইচ আর – ২৩ সর্বোত্তম ইঙ্গিত। এটি অন্ত্রকে শিথিল করে। বদহজমের দ্বারা প্রতিবন্ধী হলে সিস্টেমের উপর একটি শক্তিশালী ছাপ তৈরি করে না যা পাকস্থলীর অন্ত্রের শ্লেষ্মা ঝিল্লিকে টোন করে ও ক্ষুধা বাড়ায়। -এ Aesculin, Aesculus Hip. argynaescinএবং একটিsternutatory, saponin (aphrodaescin) থাকে যা শিরার সঞ্চালনের উপর প্রভাব ফেলে। এটি পেট এবং পেলভিক ভিসেরার স্নায়ুতন্ত্রের মূল্যের একটি প্রতিকার, যখন আধিক্য থাকে। এটি রক্তপাতহীন পাইলসের জন্য ব্যবহার করা যেতে পারে যখন পূর্ণ, বেগুনি এবং বেদনাদায়ক, মনে হয় এছাড়াও চুলকানি এবং তাপ হতে পারে, বা কেবল অস্বস্তি বা অস্বস্তির অনুভূতি হতে পারে। এটি অর্শ্বরোগ থেকে আসা স্নায়বিক ব্যথায় কার্যকরী, কারণ এটি মলদ্বার জড়িত হওয়ায় রিফ্লেক্স ব্যাধিতেও সহায়তা করে – যেমন স্প্যাসমোডিক হাঁপানি, শ্বাসকষ্ট, মাথাব্যথা, মাথা ঘোরা এবং বিরক্ত হজম। Nux Vomica প্রায়শই মিশ্রণে ব্যবহৃত হয় – গ্যাস্ট্রো-ইনটেস্টাইনাল ট্র্যাক্টে এর উদ্দীপক প্রভাবের জন্য। এটি ডিসপেপসিয়াতে গ্যাস্ট্রিক টনিক হিসাবে ব্যবহৃত হয়। অল্প মাত্রায় সালফার অন্ত্রকে আলগা করে এবং রোগ এবং বদহজম এবং ক্ষুধা বৃদ্ধি ও পাকস্থলীর অন্ত্রের শ্লেষ্মা ঝিল্লিকে টোন করে সিস্টেমের উপর একটি শক্তিশালী ছাপ তৈরি করে না।

এইচ আর – ২৩ ঔষধ সেবন বিধি : ২০ ফোঁটা ঔষধ একঢোক সমপরিমান পানির সাথে শিশিয়ে প্রতি ৬ ঘন্টা পর পর সেবন করতে হবে। শিশুরা ৫ ফোঁটা ঔষধ একঢোক সমপরিমান পানির সাথে শিশিয়ে প্রতি ৬ ঘন্টা পর পর সেবন করতে হবে। সুস্থ হলে প্রতিদিন ৩ বার সেবন করুন। অথবা রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসকের পরামর্শে সেবন করুন।

বিশেষে দ্রষ্টব্য : চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া কোন ঔষধ খাবেন না এতে শারীরিক ও মানুষিক ক্ষতি হতে পারে। ঔষধ সেবনে পুর্বে একজন রেজিষ্টার্ড চিকিৎসকের পরামর্শে ঔষধ সেবন করুণ। লক্ষণগুলি অব্যাহত থাকলে, আপনার চিকিৎসকের সাথে পরামর্শ করুন।

বিশেষ সর্তকর্তা : গর্ভবতী মহিলারা রেজিষ্টর্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ঔষধ সেবন সম্পন্ন নিষেধ।

পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া : এইচ আর – ২৩ ঔষধ সেবনে কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া জানা নাই।

ঔষধ সংরক্ষণ : সুগন্ধ-দুগন্ধ থেকে দুরে, শীতল ও শুস্ক স্থানে, শিশুদের নাগালের বাহিরে রাখুন।

আরোগ্য হোমিও হল এডমিন : এ ওয়েব সাইটের মুল উদ্দেশ্যে হচ্ছে স্বাস্থ্য সম্পের্ক কিছু দান করা বা তুলে ধরা। সাধারণ মনুষের উপকার হবে। বিশেষ করে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক ও ছাত্ররা উপকৃত হবেন। এ ওয়েব সাইটে থাকছে পুরুষ স্বাস্থ্য বা যৌনস্বাস্থ্য, গাইনি স্বাস্থ্য, শিশুস্বাস্থ্য, মাদার টিংচার, সিরাপ, বম্বিনেশন ঔষধ, বাইকেমিক ঔষধ, হোমিওপ্যাথিক বই, ইউনানি, হামদর্দ, হারবাল, ভেজষ, স্বাস্থ্য কথা ইত্যাদি। এই ওয়েব সাইটটি কে কোন জেলা বা দেশ থেকে দেখছেন “লাইক – কমেন্ট” করে জানিয়ে দিন। যদি ভালো লাগে তবে “শেয়ার” করে আপনার বন্ধুদের জানিয়ে দিন।


এ জাতীয় আরো খবর.......
Design & Developed BY FlameDev