মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:২৭ পূর্বাহ্ন

আর্সেনিক আয়োডাটাম (৩X-৬X)

আরোগ্য হোমিও হল / ২০৫ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশ কালঃ রবিবার, ২ জুলাই, ২০২৩, ২:২৯ অপরাহ্ন
আর্সেনিক আয়োডাটাম (৩X-৬X)

আর্সেনিক আয়োডাটাম (৩X-৬X)
Arsenic Iodatum (3X-6X)

ক্যাটাগরি : উইলমার শোয়াবে হোমিওপ্যাথিক ঔষধ কোম্পানি ইন্ডিয়া আর্সেনিক আয়োডাটাম (৩X-৬X)।

আর্সেনিক আয়োডাটাম (৩X-৬X) ঔষধের ব্যবহার : ফুসফুস এবং ব্রঙ্কিয়াল টিউবের দীর্ঘস্থায়ী প্রদাহ, প্রচুর পরিমাণে, সবুজ-হলুদ, পুঁজের মতো কফ উঠে এবং ছোট শ্বাস, বিরক্তিকর, সমস্ত স্রাবেই অদ্ভুত  এবং, ক্ষয়কারী চরিত্র, বিশেষ করে শুষ্ক, আঁশযুক্ত, জ্বলন্ত এবং চুলকানি যেমন সোরিয়াসিস, টিনিয়া ইত্যাদি।

আর্সেনিক আয়োডাটাম (৩X-৬X) ঔষধের লক্ষণ : শ্লেষ্মা ঝিল্লি থেকে স্রাব নিঃসরণ, স্রাব প্রচুর ঘন চটচটে মধুর মতো। ঘুম থেকে ওঠার পর খারাপ লাগে, মাথাব্যথা, সারাদিন স্থায়ী হয়। শ্বাসকষ্টের সংবেদন, শ্বাস নিতে কষ্ট, ঘন ঘন কাশি এবং মিউকো-পুরুলেন্ট এবং মাঝে মাঝে স্ট্রিং কফ উঠে।

আর্সেনিক আয়োডাটাম (৩X-৬X) ঔষধের গুরুত্বপূর্ণ লক্ষণ : হার্টের সমস্যা, দীর্ঘস্থায়ী ফুসফুসের রোগ, দীর্ঘস্থায়ী ত্বকের স্নেহ, বিস্ফোরণ, সোরিয়াসিস। সর্দি, জ্বর, ঘাম, কাশি বারবার হয় (একটানা) আক্রমণ ।এছাাড়ও অঙ্গ এবং বেদনাদায়ক অংশগুলি অসাড়তা, পেশী কাঁপানো, হাঁটা আরও খারাপ করে তোলে, বিশেষ করে দ্রুত হাঁটা। কান থেকে একটি উত্তেজনাপূর্ণ ফুটিড পুস নির্গত হয়, মধ্য কানের সংক্রমণ, গুঞ্জন, গুনগুন, বাজানো এবং কানে গর্জন, শ্রবণশক্তি দুর্বল, নাক থেকে রক্তাক্ত স্রাবের সাথে নাকে শুষ্কতা, স্তব্ধ বক্তৃতা। রাত্রে প্রচুর ঘাম,  ঘামের সাথে খড় জ্বর, দীর্ঘস্থায়ী গ্যাস্ট্রাইটিস এবং বমি ও বমি বমি ভাব, পেটে জ্বালাপোড়া, খাবারের প্রতি ঘৃণা। মাড়ির ব্যথা, মাড়ি থেকে রক্ত বের হয, নিম্ন চোয়ালের গ্রন্থি ফুলা। নাকের ভিতরে ফুলা। মাথার ত্বকের চুলকানি ইত্যাদিতে কার্যকর।

 

আর্সেনিক আয়োডাটাম (৩X-৬X) ঔষধ সেবন বিধি : ট্যাবলেটগুলি মুখে রাখুন এবং তাদের জিহ্বার নীচে দ্রবীভূত করতে দিন। প্রাপ্তবয়স্করা ও কিশোর-কিশোরীরা (১২ বছর বা তার চেয়ে বেশি বয়সী) ২টি ট্যাবলেট, প্রতিদিন সাকাল- রাত (দুইবার) অথবা রেজিষ্টার্ড চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী সেবন করুণ। দীর্ঘস্থায়ী সমাধানের ক্ষেত্রে প্রতিদিন এক থেকে দুই বার সেবন করতে হবে। লক্ষণগুলির উন্নতির সাথে সাথে ডোজ কম করুন। যদি ঔষধ সেবন করেও উপশম না হয় তবে একজন বিশেষজ্ঞের সাথে পরামর্শ করুন।

আর্সেনিক আয়োডাটাম (৩X-৬X) ঔষধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া : অ্যালোপ্যাথি অথবা আয়ুর্বেদিক বা অন্যান্য ঔষধ থাকলেও হোমিওপ্যাথিক ট্যাবলেটগুলি সেবন করা নিরাপদ। হোমিওপ্যাথিক ওষুধগুলি অন্যান্য ওষুধের ক্রিয়ায় হস্তক্ষেপ করে না। এটি নিরাপদ এবং কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই।

আর্সেনিক আয়োডাটাম (৩X-৬X) ঔষধের সতর্কতা : আপনি যখন ওষুধ খান তখন খাবারের ১৫ মিনিট আগে বা ১৫ মিনিটের পরে ঔষধ খাওয়া উত্তম।

বিশেষ দ্রষ্টব্য : আর্সেনিক আয়োডাটাম (৩X-৬X) ঔষধ গর্ভবতী বা বুকের দুধ বাচ্চা থাকলে ঔষধ খাওয়ার আগে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসককে পরামর্শে সেবন করুন। তবে যে কোন ঔষধ নিজে খাওয়া ঠিক নয়। এতে করে শারীরিক ও মানুষিক ক্ষতি হতে পারে। সব সময় একজন রেজিষ্টার্ড চিকিৎসকের পরামর্শে ঔষধ সেবন করুণ।

বাধা নিষেধ : আর্সেনিক আয়োডাটাম (৩X-৬X) ওষুধ খাওয়ার সময় তামাক খাওয়া বা অ্যালকোহল পান করা ঠিক নয়।

আর্সেনিক আয়োডাটাম (৩X-৬X) ঔষধ সংরক্ষণ : আলো-বাতাস, সুগন্ধ-দগন্ধ থেকে দুরে শীতল ও শুস্কস্থানে, শিশুদের নাগাল এর বাইরে রাখুন।

 

আজকের আলোচনা এখানেই শেষ করলাম। আশা করি আপনারা বুঝতে পেরেছেন। নতুন কোনো স্বাস্থ্য টিপস নিয়ে হাজির হবো অন্য দিন। সবাই সুস্থ্য, সুন্দর ও ভালো থাকুন। নিজের প্রতি যত্নবান হউন এবং সাবধানে থাকুন। যদি এই পোস্টটি আপনার ভালো লাগে এবং প্রয়োজনীয় মনে হয় তবে অনুগ্রহ করে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না যেন।

আরোগ্য হোমিও হল এডমিন : এই ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্যগুলো কেবল স্বাস্থ্য সেবা সম্বন্ধে জ্ঞান আহরণের জন্য। অনুগ্রহ করে রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথিক পরামর্শ নিয়ে ওষুধ সেবন করুন। চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ সেবনে আপনার শারীরিক বা মানসিক ক্ষতি হতে পারে। প্রয়োজনে, আমাদের সহযোগিতা নিন। এই ওয়েব সাইটটি কে কোন জেলা বা দেশ থেকে দেখছেন “লাইক – কমেন্ট” করে জানিয়ে দিন। যদি ভালো লাগে তবে “শেয়ার” করে আপনার বন্ধুদের জানিয়ে দিন। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।


এ জাতীয় আরো খবর.......
Design & Developed BY FlameDev