সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১২:৩৯ অপরাহ্ন

অ্যাডাল-৫৬ (ইমিউন সিস্টেম ড্রপ)

আরোগ্য হোমিও হল / ১১০ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশ কালঃ মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪, ২:১৯ অপরাহ্ন
অ্যাডেল নং - ৫৬ (ইমিউন সিস্টেম ড্রপ)

ADEL – 56 (Immune system Drops)।

অ্যাডাল-৫৬ (ইমিউন সিস্টেম ড্রপ)।

আরোগ্য হোমিও হল এ সবাইকে স্বাগতম। আশা করছি, সবাই ভালো আছেন। আজ আমরা এখানে আলোচনা করবো “অ্যাডাল নং – ৫৬ (ইমিউন সিস্টেম ড্রপ)”  কম্বিনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধ নিয়ে আজকে জনবো, এটা সবার জানা জরুরী! তো আর কথা নয় – সরাসরি মূল আলোচনায়।

প্রস্তুত প্রণালী :  জার্মান কম্বিনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধ।

ব্যবহার : অ্যাডাল নং – ৫৬ (হাবিফ্যাক) ইমিউন সিস্টেম বা জেনেটিক ইমিউন চ্যালেঞ্জের জন্য হোমিওপ্যাথিক প্রতিকার হিসাবে ব্যবহার করা হয়।

অ্যাডাল – ৫৬ হাবিফাক ড্রপস সম্পের্কে ধারণা : এটি একটি হোমিওপ্যাথিক কম্বিনেশন অ্যাডেল – ৫৬ হাবিফ্যাক ড্রপসে অ্যাসিডাম নাইটিকাম, অ্যাসিডাম ফরমিসিকামের মতো হোমিওপ্যাথিক উপাদানগুলির মিশ্রণ রয়েছে। জেনেটিক প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো যায়? এটি দীর্ঘস্থায়ী বিষাক্ত বোঝা দুর করার জন্যও নির্দেশিত যা জিনগতভাবে আপোষহীন অনাক্রম্যতা সিস্টেম ও সংক্রমণের কারণে হতে পারে। এটি সংযোগকারী টিস্যু নেশা, বাধা বিপাকীয় প্রক্রিয়া সাংবিধানিক অসামঞ্জস্য ইত্যাদিকে সম্বোধন করে।

অ্যাডা নং – ৫৬ (হাবিফ্যাক) ভুমিকা :
অ্যাডেল নং – ৫৬ (হাবিফ্যাক) কম্বিনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধে জেনেটিক প্রবণতার প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো যায়। কম্প্রোমাইজড ইমিউন সিস্টেম বলতে অনাক্রম্যতা ছাড়া শরীরকে বোঝায় যখন শরীরে অসুস্থার বিরুদ্ধে লড়াই করার ক্ষমতা থাকে না। এটি ইমিউনো দমন সিস্টেমকেও বোঝানো হয়েছে। এই অবস্থায় সংক্রামক রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বেড়ে যায়। ইমিউন সিস্টেম বিভিন্ন কারণের দ্বারা পরিবর্তন হতে পারে যেমন – স্টেস লেভেল, মানসিক পুষ্টির ঘাটতি, হতাশার ইমিউন সিস্টেমের প্রধান কারণ। একটি ইমিউন সিস্টেম ভাল কাজ করার জন্য নিন্মলিখিত বিষয় গুলি বিবেচনা করা উচিত যেমন- নিয়মিত ব্যায়াম, স্বাস্থ্যকর খাবার, নিয়মিত রক্তচাপ, পর্যপ্ত ঘুম, ধুমপান এড়িয়ে চলা ইত্যাদি।

আরও পড়ুন –  অ্যাডেল নং- ৫৭ (হজম, গ্যাস্ট্রিক, লিভার)

সাধারণত জেনেটিক প্রবণতা বলতে নিদিষ্ট রোগের বিকাশের বর্ধিত সম্ভবনাকে বোঝানো হয়েছে যা একজন ব্যাক্তির জেনেটিক মেকআপের উপর ভিত্তি করে। এটি কিছু জেনেটিক বৈচিত্রের ফলাফল হতে পারে যা প্রায়শই পিতামাতার কাছ থেকে উত্তরাধিকারসূত্রে পেয়ে থাকে। জেনেটিক প্রবণতা অনেক দীর্ঘস্থায়ী রোগের কারণ হতে পারে যা পারিবারিক ইতিহাসের মধ্যে দিয়ে যায়। অ্যাডেল-৫৬ হ্যাবিফ্যাক ড্রপগুলি মৌলিক প্রশ্লের সমাধান করে। কী ভাবে জেনেটিক প্রবণতার জন্য অনাক্রম্যতা বাড়ানো য়ায়?।

অ্যাডাল নং – ৫৬ (হাবিফ্যাক) কম্বিনেশন ঔষধের মিশ্রণ :
(১) অ্যাসিডাম ফরমিসিকাম 10x (Acidum Formicicum 10x)।
(২) অ্যাসিডাম নাইট্রিকাম 6x (Acidum Nitricum 6x)।
(৩) গ্লেকোমা হেডেরেসিয়া 6x (Glechoma Hederacea 6x)।
(৪) গ্রাফাইটস 8x (Graphites 8x)।
(৫) ব্যাপটিসিয়া টিনক্টোরা 6x (Baptisia Tinctora 6x)।
(৬) থুজা অক্সিডেন্টালিস 10x (Thouja Occidentalis 10x)।
(৭) ভিনসেটক্সিকাম হিরুন্ডিনারিয়া 8x (Vincetoxicum Hirundinaria 8x)।

অ্যাডাল নং – ৫৬ (হাবিফ্যাক) কম্বিনেশন ঔষধের কার্যকারিতা :

(ক) অ্যাসিডাম ফরমিসিকাম (Acidum Formicicum) : এটি বিষাক্ত পদার্থের নির্গমনকে উদ্দীপিত করে যা অ্যালার্জি, গাউট (ইউরিক অ্যাসিডের ত্রুটিযুক্ত বিপাক বাত সৃষ্টি করে) বাত প্রক্রিয়া অন্তর্ভুক্ত থাকে। এটি প্রদাহ বিরোধী হিসাবে কাজ করে যা দীর্ঘস্থায়ী চুলকানি উপশম করতে সাহায্য করে।

(খ) অ্যাসিডাম নাইট্রিকাম (Acidum Nitricum) : সমস্ত মিউকাস মেমব্রেনের প্রদাহ ও সংক্রমণের চিকিৎসায় ব্যবহার হয়। এটি স্নায়ুতন্ত্রের দুর্বলতা ও একগুঁয়ে, উত্তেজিত আচরণের সাথে থাকে। এটি দীর্ঘস্থায়ী প্রক্রিয়াগুলির সমাধান করে যেমন – মাথাব্যথা, ফুসফুসের টিবি, রাইনাইটিস, নাকের শ্লেষ্মা ঝিল্লির প্রদাহ, লিভারের সমস্যা, আলসার, দীর্ঘস্থায়ী জয়েন্ট রিউম্যাটিজম (জয়েন্টে প্রদাহ ও ব্যথা) এবং নেফ্রাইটিস বা কিডনির প্রদাহ।

(গ) গ্লেকোমা হেডেরেসিয়া (Glechoma Hederacea) : এটি শরীরকে টক্সিন নির্গমনে সাহায্য করে। এছাড়াও ডায়রিয়া, পাইলস ও সাধারণ প্রদাহ থেকে মুক্তি দেয়।

(ঘ) গ্রাফাইটস (Graphites) : পাচনতন্ত্র, ত্বক ও যৌন অঙ্গের রোগের চিকিৎসায় ব্যবহার হয়। এটি পেটের প্রদাহ, দীর্ঘস্থায়ী রাইনাইটিস, পাইলস, পায়ে ভেরিকোজ শিরা (বর্ধিত ও পেঁচানো শিরা) এবং দীর্ঘস্থায়ী একজিমা (ত্বকের দাগ রুক্ষ হয়ে যাওয়া ও ফোস্কা দিয়ে ফুলে যাওয়া) সমাধান করে।

(ঙ) ব্যাপটিসিয়া টিনক্টোরা (Baptisia Tinctora) : এটি ধীরে ধীরে খারাপ হয় বা দীর্ঘস্থায়ী সংক্রমণের প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সহায়তা করে।

আরও পড়ুন – এইচ আর – ১৫ (ইউরিক অ্যাসিডে কার্যকর)

(চ) থুজা অক্সিডেন্টালিস (Thouja Occidentalis) : সাংবিধানিক ও মানসিক অসুস্থতার চিকিৎসায় ব্যবহার হয়। এটি শ্লেষ্মা ঝিল্লির, উষ্ণতা নিয়ন্ত্রণের অসঙ্গতিগুলি দূর করে। এটি অন্ত্রের কর্মহীনতা, নিউরালজিয়া (একটি স্নায়ুর সাথে বিরতিহীন ব্যথা), চুলকানি, জ্বলন্ত সংবেদন ও বাত প্রক্রিয়ার সমাধান করে।

(ছ) ভিনসেটক্সিকাম হিরুন্ডিনারিয়া (Vincetoxicum Hirundinaria) : ভাইরাল সংক্রমণ ও দীর্ঘস্থায়ী অসুস্থতায় উপস্থিত প্যাথোজেনগুলির চিকিৎসায় ব্যবহার হয়।

অ্যাডাল নং- ৫৬ ঔষধ সেবন বিধি : প্রাপ্ত বয়স্করা জন্য ১৫ থেকে ২০ ফোঁটা, শিশুরা ৭ থেকে ১০ ফোঁটা ঔষধ ১/৪ কাপ পানিতে মিশিয়ে দিনে ৩ বার অথবা রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসকের পরামর্শে সেবন করতে হবে।

চিকিৎসকের কিছু পরারর্শ : ওষুধ খাওয়ার সময় মুখের কোনো তীব্র গন্ধ যেমন কফি, পেঁয়াজ, শিং, পুদিনা, কর্পূর, রসুন ইত্যাদি এড়িয়ে চলুন। খাবার/পানীয়/অন্য কোনো ওষুধ এবং অ্যালোপ্যাথিক ওষুধের মধ্যে অন্তত আধা ঘণ্টার ব্যবধান রাখুন।

শর্তাবলী : কম্বেনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধগুলি সাধারণত লক্ষণে উপর ভিভি করে ব্যবহার করা হয়। মনে রাখবেন হোমিওপ্যাথিক সদৃশ্য বিধান একটি চিকিৎসা ব্যবস্থা, বেশি লক্ষণে সঙ্গে মিলিলে তবেই ব্যবহার যোগ্য। তা না হলে অবস্থার উপর নির্ভর করে ফলাফল পরিবর্তিত হতে পারে।

পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া : এই ঔষধ সেবনে কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই।

সতর্কতা : সুস্ক ও শীতল স্থানে সুগন্ধ-দুগন্ধ, আলো-বাতাস থেকে দুরে, শিশুদের নাগালের বাহিরে রাখুন।

আরোগ্য হোমিও হল এডমিন : আজকের আলোচনা এখানেই শেষ করলাম। আশা করি আপনারা বুঝতে পেরেছেন। নতুন কোনো স্বাস্থ্য টিপস নিয়ে হাজির হবো অন্য দিন। এই ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্যগুলো কেবল স্বাস্থ্য সেবা সম্বন্ধে জ্ঞান আহরণের জন্য। অনুগ্রহ করে রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথিক পরামর্শ নিয়ে ওষুধ সেবন করুন। চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ সেবনে আপনার শারীরিক বা মানসিক ক্ষতি হতে পারে। প্রয়োজনে, আমাদের সহযোগিতা নিন। এই ওয়েব সাইটটি কে কোন জেলা বা দেশ থেকে দেখছেন “লাইক – কমেন্ট” করে জানিয়ে দিন। যদি ভালো লাগে তবে “শেয়ার” করে আপনার বন্ধুদের জানিয়ে দিন। সবাই সুস্থ্য, সুন্দর ও ভালো থাকুন। নিজের প্রতি যত্নবান হউন এবং সাবধানে থাকুন। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।


এ জাতীয় আরো খবর.......
Design & Developed BY FlameDev