সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১২:৪৬ অপরাহ্ন

অ্যাডাল-৪৮ (ফোলা লিম্ফ ও টিউমার)

আরোগ্য হোমিও হল / ১২১ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশ কালঃ বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪, ৬:০৬ অপরাহ্ন
অ্যাডেল নং – ৪৮ (ফোলা লিম্ফ ও টিউমার)

Adele- 48 (Swollen Lymph and Tumor Drops)।

অ্যাডাল-৪৮ (ফোলা লিম্ফ ও টিউমার ড্রপস)।

আরোগ্য হোমিও হল এ সবাইকে স্বাগতম। আশা করছি, সবাই ভালো আছেন। আজ আমরা এখানে আলোচনা করবো ”অ্যাডাল – ৪৮ (ফোলা লিম্ফ ও টিউমার ড্রপস)” কম্বিনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধ নিয়ে আজকে জনবো, এটা সবার জানা জরুরী! তো আর কথা নয় – সরাসরি মূল আলোচনায়।

প্রস্তুত প্রণালী :  জার্মান কম্বিনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধ।

অ্যাডাল নং – ৪৮ ঔষধের ব্যবহার : ফোলা লিম্ফ টিস্যু, স্ফীত গ্রন্থি, নোডের সহায়ক চিকিৎসায় শরীরকে পরিষ্কার এবং ডিটক্সিফাই করে এবং ক্যান্সারের চিকিৎসায় সহায়তা করে (অ্যাডজুভেন্ট)।

অ্যাডাল নং – ৪৮ ঔষধের ইঙ্গিত : এটি লিম্ফ্যাটিক সংক্রমণ, পুঁজ-উৎপাদক সংক্রমণ, মাম্পস, অ্যাডেনোমা, ম্যাস্টাইটিস, টনসিল, স্তন গ্রন্থিগুলির সৌম্য ফুলা, থাইমাস এবং প্লীহাও লিম্ফ্যাটিক সিস্টেমের অংশ হিসাবে নিওপ্লাজমের জন্য। ক্যান্সারের চিকিৎসায় সাহায্য করার জন্য অনাক্রম্যতা বাড়ায় (অনুষঙ্গিক)। এটি পুরো লিম্ফ্যাটিক সিস্টেমকে উদ্দীপিত করে এবং ডিটক্সিফাই করে – শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ – তীব্র এবং দীর্ঘস্থায়ী অসুস্থতার সময় টক্সিন দ্রুত নির্গমনে সহায়তা করে। লিম্ফের কার্যকর প্রবাহ স্থবিরতা ও ব্লকেজগুলিকে প্রতিরোধ করে যা নতুন সংক্রমণের সম্ভাবনা বাড়ায়।

এটি অন্ত্রের লিম্ফ্যাটিক জাহাজগুলি (শরীরে বর্জ্য পণ্য এবং বিষাক্ত পদার্থের জন্য সবচেয়ে বড় নির্গমন অঙ্গকেও উদ্দীপিত করে যাতে অন্ত্রের দেয়ালের মাধ্যমে পুনরায় বিষক্রিয়া না হয়। অঙ্গগুলি বিভিন্ন পর্যায়ে প্রভাবিত কোষের ক্লান্তির দিকে নিয়ে যায় যা প্যাথোজেনিক প্রক্রিয়াগুলিকে বিপরীত করতে প্রতিরোধ ক্ষমতা সক্রিয় করে এবং শরীরকে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বিষাক্ত লোড নির্গত করতে সাহায্য করে৷ যা প্রতিটি ক্যান্সার থেরাপিতে কারণ লিম্ফ্যাটিক সিস্টেমের বাধাগুলি অবশেষে সংযোগকারী টিস্যুতে নেশা সৃষ্টি করতে পারে।

আরও পড়ুন – এইচ আর – ২৮ (টিউমারের চিকিৎসায় কার্যকর)

অ্যাডাল নং – ৪৮ ঔষধের লক্ষণ :
এটি লিম্ফ্যাটিক সংক্রমণ এবং ব্লক – বয়স, ফোলা গ্রন্থি, অঙ্গ এবং শ্লেষ্মা ঝিল্লির তীব্র এবং দীর্ঘস্থায়ী সংক্রমণ, সমস্ত পুসপ্রোডাকশন সংক্রমণ (ব্রঙ্কাইটিস এবং টনসিলাইটিস), মাম্পস, অ্যাডেনোমা, মাস্টোপ্যাথি, বেনাইন দ্য ব্রঙ্কাইটিস এবং নিওপ্লাজম। এটি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়, ক্যান্সারযুক্ত ত্বকের বৃদ্ধি এবং মূত্রবর্ধক হিসাবে কাজ করতে সহায়তা করে। তীব্র এবং দীর্ঘস্থায়ী অসুস্থতার সময় টক্সিন দ্রুত নির্গমনে সাহায্য করার জন্য সম্পূর্ণ লিম্ফ্যাটিক সিস্টেমকে উদ্দীপিত করে এবং ডিটক্সিফাই করে ইমিউন প্রতিক্রিয়ার একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হিসাবে কাজ করে।

আরও পড়ুন – কেন্ট ৬৬  (টিউমার ও ক্যান্সার রোগে কার্যকর)

অ্যাডাল নং – ৪৮ ঔষধের মিশ্রণ :

(১) ইচিনেসিয়া 6x (Echinacea 6x)।
(২) ক্যালসিয়াম জোডাটাম 6x (Calcium jodatum 6x)।
(৩) কোনিয়াম ম্যাকুল্যাটাম 6x (Conium maculatum 6x)।
(৪) গ্যালিয়াম অ্যাপারিন 8x (Galium aparine 8x)।
(৫) জুগ্লান্স রেজিয়া 8x (Juglans regia 8x)।
(৬) বেরিয়াম কার্বনিকাম 8x (Barium carbonicum 8x)।
(৭) সিস্টাস ক্যানাডেনসিস 6x (Cistus canadensis 6x)।
(৮) স্ক্রোফুলারিয়া নোডোসা 6x (Scrophularia nodosa 6x)

আরও পড়ুন – এন – ১৭ অর্বুদ (টিউমার কিউলোসিস আলসাশেন) ড্রপস

অ্যাডাল নং – ৪৮ ঔষধের কার্যকারিতা :

(ক) ইচিনেসিয়া (Echinacea) : এটি প্রথম শ্রেণীর ইমিউন উদ্দীপক হিসাবে কাজ করে যা কার্যকর ভাবে সংক্রমণ ও রক্তের সমস্ত সেপটিক অবস্থা থেকে মুক্তি দেয়। এটি লিউকোসাইটের উৎপাদন উদ্দীপিত করে, যা সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য শরীরের প্রতিরক্ষামূলক ব্যবস্থার একটি মূল উপাদান বলা যায়। এটি সংক্রামিত টিস্যু থেকে নির্গত বিষাক্ত পদার্থের প্রভাব নিরপেক্ষ রাখে।

(খ) ক্যালসিয়াম জোডাটাম (Calcium jodatum) : এটি দীর্ঘস্থায়ী গ্রন্থি ও সংক্রমণ এবং ফোলা টনসিল উপশম করে। এটি সার্ভিকাল এবং মেসেন্টেরিক লিম্ফ নোডের শক্ত হওয়ার সমাধান করে এবং নতুন ফোলা লিম্ফ নোডের বিকাশ হ্রাস করে। এটি আয়োডিনের সাথে সংযোগকারী টিস্যু নিয়ন্ত্রণ করে।

(গ) কোনিয়াম ম্যাকুল্যাটাম (Conium maculatum) : এটি একটি ঐতিহ্যগত লিম্ফ্যাটিক ওষুধ যা অলস লিম্ফ নোডগুলিকে উদ্দীপিত করে ও সক্রিয় করে। এটি লসিকা গ্রন্থিগুলিকে শক্ত করতে সাহায্য করে এবং বিষণ্নতা, প্রোস্টাটাইটিস, প্রোস্ট্যাটিক হাইপারট্রফি ও বার্ধক্য এবং দীর্ঘস্থায়ী অসুস্থতার সাথে বিপাককে ধীর করে দিতে কার্যকর ভুমিকা রাখে।

(ঘ) গ্যালিয়াম অ্যাপারিন (Galium aparine) : এটি লিম্ফ নোডের শক্ত হওয়ার জন্য নির্দেশিত। এটি একটি ক্লান্ত বিপাক নিয়ন্ত্রণে সহায়াতা করে এবং মূত্রাশয়, ত্বক ও কিডনির রোগের সমাধান করে। এটি ঐতিহ্যগত ভাবে মেলানোমা সহ বিভিন্ন ধরণের ক্যান্সার থেকে মুক্তি দিতে ব্যবহারিত হয়ে আসছে।

আরও পড়ুন – র‌্যাক্স নং- ১৭ (টিউমার)

(ঙ) জুগ্লান্স রেজিয়া (Juglans regia) : এটি লিভারের কর্মহীনতা, ত্বকের ভেজা একজিমা, হার্পিস ও তীব্র চুলকানির সাথে ইম্পেটিগোতেও সহায়তা করে। এটি অন্ত্রের কর্মহীনতার সাথে সম্পর্কযুক্ত কনজেস্টিভ মাথাব্যথা উপশম করতে সাহায্য করে।

(চ) বেরিয়াম কার্বনিকাম (Barium carbonicum) : এটি শিশুদের ঘাড়ের পাশে ফোলা, শক্ত লিম্ফ নোডের জন্য কাজ করে, মহিলাদের স্তনে প্রায়শ অ্যাডেনোমা দেখা যায়, যাহা খুব দ্রুত অস্ত্রোপচারের প্রতিক্রিয়ার দিকে ধাবিত হয় কারণ লিম্ফ শক্ত হয়ে যাওয়াকে ম্যালিগন্যান্ট বলে মনে করা হয়। এটি উভয় তীব্র এবং দীর্ঘস্থায়ী লিম্ফ্যাটিক অবস্থার অপসারণ করতে সক্ষম।

(ছ) সিস্টাস ক্যানাডেনসিস (Cistus canadensis) : এটি দীর্ঘস্থায়ী লিম্ফোমা এবং অ্যাডিনোমাসহ সংক্রামক লিম্ফ্যাটিক অবস্থা থেকে মুক্তি দেয়। এটি ত্বক এবং অন্ত্রের দীর্ঘস্থায়ী সংক্রমণ সমাধানে সাহায্য করে।

(জ) স্ক্রোফুলারিয়া নোডোসা (Scrophularia nodosa) : নোডোসা স্ফীত, সংক্রামিত ও ফোলা লিম্ফ নোড উপশম করে। এটি একজিমা, আলগা দাঁত, মাড়ি থেকে রক্তপাত এবং গলগন্ডের বিকাশের জন্যও ব্যবহারিত হয়।

আরও পড়ুন – ক্যাক্লেরিয়া ফ্লোর -৩০

অ্যাডাল নং – ৪৮ ঔষধ সেবন বিধি : প্রাপ্ত বয়স্করা জন্য ১৫ থেকে ২০ ফোঁটা, শিশুরা ৭ থেকে ১০ ফোঁটা ১/৪ কাপ পানিতে মিশিয়ে দিনে ৩ বার অথবা রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসকের পরামর্শে সেবন করতে হবে।

চিকিৎসকের কিছু পরারর্শ : ওষুধ খাওয়ার সময় মুখের কোনো তীব্র গন্ধ যেমন কফি, পেঁয়াজ, শিং, পুদিনা, কর্পূর, রসুন ইত্যাদি এড়িয়ে চলুন। খাবার/পানীয়/অন্য কোনো ওষুধ এবং অ্যালোপ্যাথিক ওষুধের মধ্যে অন্তত আধা ঘণ্টার ব্যবধান রাখুন।

শর্তাবলী : কম্বেনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধগুলি সাধারণত লক্ষণে উপর ভিভি করে ব্যবহার করা হয়। মনে রাখবেন হোমিওপ্যাথিক সদৃশ্য বিধান একটি চিকিৎসা ব্যবস্থা, বেশি লক্ষণে সঙ্গে মিলিলে তবেই ব্যবহার যোগ্য। তা না হলে অবস্থার উপর নির্ভর করে ফলাফল পরিবর্তিত হতে পারে।

পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া : এই ঔষধ সেবনে কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ানেই।

সতর্কতা : সুস্ক ও শীতল স্থানে সুগন্ধ-দুগন্ধ, আলো-বাতাস থেকে দুরে, শিশুদের নাগালের বাহিরে রাখুন।

আরোগ্য হোমিও হল এডমিন : আজকের আলোচনা এখানেই শেষ করলাম। আশা করি আপনারা বুঝতে পেরেছেন। নতুন কোনো স্বাস্থ্য টিপস নিয়ে হাজির হবো অন্য দিন। এই ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্যগুলো কেবল স্বাস্থ্য সেবা সম্বন্ধে জ্ঞান আহরণের জন্য। অনুগ্রহ করে রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথিক পরামর্শ নিয়ে ওষুধ সেবন করুন। চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ সেবনে আপনার শারীরিক বা মানসিক ক্ষতি হতে পারে। প্রয়োজনে, আমাদের সহযোগিতা নিন। এই ওয়েব সাইটটি কে কোন জেলা বা দেশ থেকে দেখছেন “লাইক – কমেন্ট” করে জানিয়ে দিন। যদি ভালো লাগে তবে “শেয়ার” করে আপনার বন্ধুদের জানিয়ে দিন। সবাই সুস্থ্য, সুন্দর ও ভালো থাকুন। নিজের প্রতি যত্নবান হউন এবং সাবধানে থাকুন। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।


এ জাতীয় আরো খবর.......
Design & Developed BY FlameDev