শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৩:৫৬ অপরাহ্ন

অনিয়মিত রক্তস্রাব কী? কেন হয় কী করবেন?

আরোগ্য হোমিও হল / ১৪২ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশ কালঃ শুক্রবার, ১ ডিসেম্বর, ২০২৩, ৫:০৭ অপরাহ্ন
অনিয়মিত রক্তস্রাব কী কেন হয় কী করবেন

অনিয়মিত রক্তস্রাব কী? কেন হয় কী করবেন?
আরোগ্য হোমিও হল এ সবাইকে স্বাগতম। আশা করছি, সবাই ভালো আছেন। আজ আমরা এখানে আলোচনা করবো মেয়েদের অনিয়মিত রক্তস্রাব কী? কেন হয় কী করবেন, নারীদের অনিয়মিত পিরিয়ড কেন হয় তা নিয়ে আজকের জনবো, এটা সবার জানা জরুরী! তো আর কথা নয় – সরাসরি মূল আলোচনায়।

ঋতুস্রাব অথবা রক্তস্রাব একজন নারীর শরীরের একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। বৃদ্ধা বাদে প্রাপ্তবয়স্ক থেকে শুরু করে সব মহিলারাই ঋতুস্রাব সমস্যায় ভোগেন। যদি এই স্বাভাবিক প্রক্রিয়া ব্যাহত হয় তবে শরীরে বিভিন্ন ধরনের অসুস্থতা দেখা দিতে পারে। এ ছাড়া গর্ভধরনেও বাধা সৃষ্টি করে। অপনার শরীরে হরমোনের তারতম্যের কারণেও অনিয়মিত মাসিক হতে পারে৷ এতে করে চিন্তার কোনো কারণ নেই৷ এ বিষয়ে চিকিৎসকের পরামর্শ নিলে মিলবে সমাধান ।

আরও পড়ুন – এইচ আর – ২১ (মাসিক সমস্যায় কার্যকর)

অনিয়মিত রক্তস্রাব কী?
প্রতি চন্দ্র মাস পর পর হরমোনের প্রভাবে পরিণত মহিলাদের জরায়ু চক্রাকারে যে পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে যায় তখন রক্ত ও জরায়ু নিঃসৃত অংশ যোনিপথ দিয়ে বের হয়ে আসে তাকেই ঋতুচক্র বা ঋতু¯্রাব বলে। মাসিক বা ঋতু¯্রাব চলাকালীন পেটব্যথা, পিঠব্যথা, বমি বমি ভাব বা বমি হতে পারে। আর যে মহিলাদের এই মাসিক ঋতুচক্র প্রতি মাসে হয় না অথবা দুই মাস আবার কখনও চার মাস পর পর হয়, তখন তাকে অনিয়মিত পিরিয়ড বা মাসিক বলে। আবার অনেক সময় মাসিক হলেও তার পর মাঝে মধ্যেই রক্ত যেতে পারে।

জেনে নেওয়া যাক নারীদের অনিয়মিত পিরিয়ড কেন হয়?

(ক) জরায়ুতে মায়োমা বা টিউমার থাকার কারণে মহিলাদের মাসিকের সময় খুব বেশি বি¬ডিং ও ব্যথা হয়ে থাকে৷ ইহা ছাড়া অনেকের ক্ষেত্রে টিউমারের সংখ্যা একাধিকও থাকতে পারে, যা ইহা খুব দ্রুত বড় হয়ে যেতে পারে৷ এই অবস্থায় অপারেশন করা জরুরি হয়ে পড়ে, বিশেষ করে যে সব মহিলরা মা হতে চান৷

(খ) ডিম্বাশয় অথাবা ওভারিতে ‘সিস্ট’ হওয়ার কারণেও মাসিক অনিয়মিত হতে পারে৷ সিস্ট নানা আকারের হতে পারে। এ সিস্ট গুলোর ভেতরে রক্ত ও পানির মতো পদার্থ থাকে।

(গ) যোনাঙ্গের আশপাশের নরম ত্বকে অথবা জরায়ুর প্রবেশ পথেও ছোট ছোট শক্ত ফুসকুড়ির মতো হয়ে থাকে৷ এটি সাধারণত মহিলাদের হরমোন এস্ট্রোজেন অথবা ইস্ট্রোজেনের কারণেই হয়ে থাকে৷ এ ক্ষেত্রেও ফুসকুড়ি অপারেশন করে বের করে ফেলাই ভালো।

(ঘ) জন্মনিয়ন্ত্রন পিল মাসিকের ওপর সরাসরি প্রভাব ফেলে। এটি পিরিয়ড চক্রকে হালকা করে দেয় এবং বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই মাসিক সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করে দেয়।

(ঙ) গবেষণায় প্রমাণিত থাইরয়েড সমস্যা হলে মাসিক অনিয়মিত হতে পারে।

(চ) হঠাৎ অতিরিক্ত ওজন বেড়ে যাওয়ার কারণেও অনিয়মিত মাসিক কারণ হতে পারে। যদি আপনার স্বল্পসময়ের মধ্যে ওজন বাড়লে তা শরীরের হরমোনের স্বাভাবিক কার্যক্রমকে প্রভাবিত করতে পারে। এর মধ্যে যৌন হরমোনও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। এটি অনিয়মিত মাসিকের কারণ হতে পারে।

আরও পড়ুন – এইচ আর – ৭৯ (মাসিকের আগে উপসর্গে কার্যকর)

যে সব কারণে স্বাস্থ্যঝুঁকি রয়েছে :
অনিয়মিত রক্তস্রাবের কারণ ও অতিরিক্ত ওজন বেড়ে যাওয়া মাতৃত্বের স্বাস্থ্যঝুঁকি রয়েছে। এ মহিলারা অনেক সময় ইচ্ছে করলেও গর্ভধারণ করতে পারেন না। এ সব মহিলাদের বন্ধ্যত্বের ঝুঁকি বেড়ে যায়।

এ ছাড়াও তারা বিভিন্ন ধরনের রোগে আক্রান্ত হতে পারে। অনিয়মিত পিরিয়ড অবস্থায় সন্তান আসা খুব কঠিন। কেননা অনিয়মিত পিরিয়ড কারণই হচ্ছে তার ডিম্বাশয় থেকে ডিম্বাণু ফুটছে না। তাই সন্তান নিতে হলে চিকিৎসা নিয়ে মাসিক নিয়মিত করতে হবে তবেই তিনি গর্ভধারণ করতে পারবেন।

আরও পড়ুন –  গাইনো কার্ড ট্যাবলেট (শ্বেত প্রদর ও মাসিকের সম্যাসায় টনিক)

রোাগ নির্নয় করে চিকিৎসা :
রোগের কারণ ও রোগ নির্ণয় করার পর চিকিৎসা নিলে আবার নিয়মিত মাসিক শুরু হবে। তখন তার ডিম্বাশয়, জরায়ু অথবা পিটুইটারি গ্রন্থিতে গঠনগত কোনো সমস্যা আর না থাকে, তবে পরবর্তী সময়ে গর্ভধারণ করার ক্ষেত্রেও কোন বাধা নয় ।

লেখক : সহযোগী অধ্যাপক (অবস-গাইনি), খাজা ইউনুস আলী মেডিকেল কলেজ, সিরাজগঞ্জ।

আজকের আলোচনা এখানেই শেষ করলাম। আশা করি আপনারা বুঝতে পেরেছেন। নতুন কোনো স্বাস্থ্য টিপস নিয়ে হাজির হবো অন্য দিন। সবাই সুস্থ্য, সুন্দর ও ভালো থাকুন। নিজের প্রতি যত্নবান হউন এবং সাবধানে থাকুন। যদি এই পোস্টটি আপনার ভালো লাগে এবং প্রয়োজনীয় মনে হয় তবে অনুগ্রহ করে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না যেন।

আরোগ্য হোমিও হল এডমিন  : এই ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্যগুলো কেবল স্বাস্থ্য সেবা সম্বন্ধে জ্ঞান আহরণের জন্য। অনুগ্রহ করে রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথিক পরামর্শ নিয়ে ওষুধ সেবন করুন। চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ সেবনে আপনার শারীরিক বা মানসিক ক্ষতি হতে পারে। প্রয়োজনে, আমাদের সহযোগিতা নিন।  এই ওয়েব সাইটটি কে কোন জেলা বা দেশ থেকে দেখছেন “লাইক – কমেন্ট” করে জানিয়ে দিন। যদি ভালো লাগে তবে “শেয়ার” করে আপনার বন্ধুদের জানিয়ে দিন। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।


এ জাতীয় আরো খবর.......
Design & Developed BY FlameDev