শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:৪৭ অপরাহ্ন

আর ১৮৬ (মাম্পস ড্রপ)

আরোগ্য হোমিও হল / ৫৮ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশ কালঃ মঙ্গলবার, ২৬ মার্চ, ২০২৪, ৪:২৯ অপরাহ্ন
আর ১৮৬ (মাম্পস ড্রপ)

Dr. Reckeweg / R 186 (mumps drop) 
আর ১৮৬ (মাম্পস ড্রপ)
আরোগ্য হোমিও হল এ সবাইকে স্বাগতম। আশা করছি, সবাই ভালো আছেন। আজ আমরা এখানে আলোচনা করবো “ আর ১৮৬ (মাম্পস ড্রপ)” কম্বিনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধ নিয়ে আজকে জনবো, এটা সবার জানা জরুরী! তো আর কথা নয় – সরাসরি মূল আলোচনায়।
প্রস্তুত প্রণালী : Dr. Reckeweg R 186  (মাম্পস ড্রপ) জার্মান কম্বিনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধ।
আর ১৮৬ (মাম্পস ড্রপ) ইঙ্গিত : এটি লালা গ্রন্থির প্রদাহের ক্ষেত্রে যেমন – প্যারোটিড (মাম্পস) এর সহায়ক চিকিৎসার জন্য মাম্পসের ফলস্বরূপ।
আর ১৮৬ মাম্পস ড্রপটি উপাদানের কর্মের মোড : এটি বিভিন্ন কর্মের ফোকাস সহ লালা গ্রন্থিগুলির একটি সাধারণ প্রদাহের কোর্সকে প্রভাবিত করে।

আরও পড়ুন –  অ্যাডাল-৩২ (প্রদাহ, প্লুরিসি, ইন্টারকোস্টাল নিউরালজিয়া)

আর ১৮৬ মাম্পস ড্রপটি মুল উপাদান মিশ্রণ :
(ক) পালসেটিলা (Pulsatilla)।
(খ) বেলাডোনা (Belladonna)।
(গ) বেরিয়াম আয়োডাটাম (Barium iodatum)।

আরও পড়ুন –  র‌্যাক্স নং- ১ (সংক্রমণ এবং প্রদাহ)

আর ১৮৬ মাম্পস ড্রপটি কার্যকারিতা :
(১) পালসেটিলা (Pulsatilla) : এটি শ্লেষ্মা ঝিল্লি এবং প্রজনন গ্রন্থির উপর অর্গানোট্রপিক প্রভাব রয়েছে। অর্কাইটিস, মাম্পস দ্বারা সৃষ্ট ওভারাইটিস ইত্যাদি।
(২) বেলাডোনা (Belladonna) : এটি প্রদাহ বিরোধী ও অ্যান্টিপাইরেটিক, এর প্রধান লক্ষণগুরিল হল তাপ সহ বিভিন্ন অঙ্গের হঠাৎ জ্বরজনিত প্রদাহ, লালভাব এবং বিক্রিয়া ইত্যাদি।
(৩) বেরিয়াম আয়োডাটাম (Barium iodatum) : এটি ইম্ফ্যাটিক সিস্টেমে হিস্টিওট্রপিক প্রভাব রয়েছে। লিম্ফ্যাটিক গ্রন্থির ইনডুরেশন ও হাইপারট্রফি।।
আর ১৮৬ ঔষধ সেবন বিধি : প্রাপ্ত বয়স্করা জন্য ১৫ থেকে ২০ ফোঁটা, শিশুরা ৭ থেকে ১০ ফোঁটা ঔষধ ১/৪ কাপ পানিতে মিশিয়ে দিনে ৩ বার অথবা রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসকের পরামর্শে সেবন করতে হবে।

আরও পড়ুন –  অ্যাডাল-৩৮ (ক্র্যাম্প, খিঁচুনি ড্রপস)

চিকিৎসকের কিছু পরারর্শ : ওষুধ খাওয়ার সময় মুখের কোনো তীব্র গন্ধ যেমন কফি, পেঁয়াজ, শিং, পুদিনা, কর্পূর, রসুন ইত্যাদি এড়িয়ে চলুন। খাবার/পানীয়/অন্য কোনো ওষুধ এবং অ্যালোপ্যাথিক ওষুধের মধ্যে অন্তত আধা ঘণ্টার ব্যবধান রাখুন।
সতর্কতা : গর্ভবতী মা অথবা দুগ্ধদানকারী মায়েরা ঔষধ সেবনের পূর্বে রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথি চিকিৎসকের পরামর্শে ঔষধ সেবন করা উত্তম।

শর্তাবলী : কম্বেনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধগুলি সাধারণত লক্ষণে উপর ভিভি করে ব্যবহার করা হয়। মনে রাখবেন হোমিওপ্যাথিক সদৃশ্য বিধান একটি চিকিৎসা ব্যবস্থা, বেশি লক্ষণে সঙ্গে মিলিলে তবেই ব্যবহার যোগ্য। তা না হলে অবস্থার উপর নির্ভর করে ফলাফল পরিবর্তিত হতে পারে।

পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া : এই ঔষধ সেবনে কোন পাপার্শ্বপ্রতিক্রিয়া  নেই।
ঔষধ সরক্ষণ : সুস্ক ও শীতল স্থানে সুগন্ধ-দুগন্ধ, আলো-বাতাস থেকে দুরে, শিশুদের নাগালের বাহিরে রাখুন।
আরোগ্য হোমিও হল এডমিন : আজকের আলোচনা এখানেই শেষ করলাম। আশা করি আপনারা বুঝতে পেরেছেন। নতুন কোনো স্বাস্থ্য টিপস নিয়ে হাজির হবো অন্য দিন। এই ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্যগুলো কেবল স্বাস্থ্য সেবা সম্বন্ধে জ্ঞান আহরণের জন্য। অনুগ্রহ করে রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথিক পরামর্শ নিয়ে ওষুধ সেবন করুন। চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ সেবনে আপনার শারীরিক বা মানসিক ক্ষতি হতে পারে। প্রয়োজনে, আমাদের সহযোগিতা নিন।  এই ওয়েব সাইটটি কে কোন জেলা বা দেশ থেকে দেখছেন “লাইক – কমেন্ট” করে জানিয়ে দিন। যদি ভালো লাগে তবে “শেয়ার” করে আপনার বন্ধুদের জানিয়ে দিন।  সবাই সুস্থ্য, সুন্দর ও ভালো থাকুন। নিজের প্রতি যত্নবান হউন এবং সাবধানে থাকুন।  আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।


এ জাতীয় আরো খবর.......
Design & Developed BY FlameDev