শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ০৬:৩৬ অপরাহ্ন

জেনিটাল চ্যানক্রোয়েড হোমিওপ্যাথি ঔষধ

আরোগ্য হোমিও হল / ২৪৭ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশ কালঃ বুধবার, ১০ জানুয়ারী, ২০২৪, ৬:২৬ পূর্বাহ্ন
জেনিটাল চ্যানক্রোয়েড হোমিওপ্যাথি ঔষধ

জেনিটাল চ্যানক্রোয়েড হোমিওপ্যাথি ঔষধ
আরোগ্য হোমিও হল এ সবাইকে স্বাগতম। আশা করছি, সবাই ভালো আছেন। আজ আমরা এখানে আলোচনা করবো জেনিটাল চ্যানক্রোয়েড হোমিওপ্যাথি ঔষধ নিয়ে আজকে জনবো, এটা সবার জানা জরুরী! তো আর কথা নয় – সরাসরি মূল আলোচনায়।

চ্যানক্রোয়েড (Chancroid) হল একটি ব্যাকটেরিয়াজনিত অবস্থা যা যৌনাঙ্গে বা চারপাশে খোলা ঘা সৃষ্টি করে। এটি এক ধরনের যৌন সংক্রমিত সংক্রমণ (STI), যার মানে এটি যৌন মিলনের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এটি সাধারণত যৌনাঙ্গের আলসার অথবা ক্ষত থেকে হয়ে থাকে এবং আক্রান্ত স্থান প্রচণ্ড যন্ত্রনা করে। চ্যানক্রোয়েড নরম প্রান্তযুক্ত আলসার সৃষ্টি করে, এটি সাধারণত যৌনাঙ্গে দেখা যায়। আপনার কুঁচকি অঞ্চলের লিম্ফ নোডগুলিতেও ফোলাভাব ও ব্যথা হতে পারে। চ্যানক্রোয়েড হলো একটি রোগ, ঘা নয়। চ্যানক্রোয়েডে আপনার একটি নরম চ্যাঙ্কার (আলসার) থাকবে। এগুলি বেদনাদায়ক এবং লাল হয়। তাদের কোন শক্ত প্রান্ত নেই এবং তারা পুঁজ ফুটো করতে পারে। চ্যানক্রোয়েড (Chancroid) ইনফেকশন নিরাময়যোগ্য। তবে মনে রাখবেন রোগ নির্ণয়ের সাথে সাথে দেরি না করে দ্রুত সম্ভব চিকিৎসা গ্রহণ করা উচিৎ। যথাসময়ে চিকিৎসা করা না হলে স্যাঙ্করয়েড থেকে HIVহওয়ার ঝুঁকি বাড়ে।

চ্যানক্রোয়েড (Chancroid) লক্ষণ :
এই রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে চিকিৎসকেরা নিম্নলিখিত লক্ষণগুলি নিন্মে দেওয়া হলো :
(১) চোখে ব্যথা হওয়া।
(২) কাঁধের মাংসপেশীতে খিঁচুনি বা টান।
(৩) মুখমণ্ডলে ব্যথা।
(৪) গোড়ালির ব্যথা।
(৫) কব্জিতে ব্যথা।
(৬) গর্ভকালীন ব্যথা।
(৭) অতিরিক্ত রাগ।
(৮) অস্থিসন্ধি শক্ত হয়ে যাওয়া।
(৯) স্তনে ব্যথা বা ঘা হওয়া।
(১০) হাঁটুতে শক্ত পিণ্ড দেখা দেওয়া ও অবসাদ।
(১১) রাতে অতিরিক্ত মূত্রত্যাগ।

আরও পড়ুন –    নারী যৌনাঙ্গের ভ্যাজিনাল ট্রাইকোমোনিয়াসিস হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা

চ্যানক্রোয়েড (Chancroid) কারণ:
হিমোফিলাস ডুক্রেই নামক ব্যাক্টেরিয়ার কারণে এ রোগ সৃষ্টি হয়। এরা সাধারণত টিস্যুকে আক্রান্ত করে ও যৌনাঙ্গের বাহিরের অংশে ঘা সৃষ্টি করে। একে চ্যানক্রোয়েড (Chancroid) বা আলসার বল হয়। এই আলসার থেকে রক্তক্ষরণ বা সংক্রামক ফ্লুইড অথবা তরল বের হয়, যার ফলে যৌন মিলনের সময় খুব সহজেই এক ব্যাক্তির শরীর থেকে
অন্য ব্যক্তির শরীরে জীবাণু প্রবেশ করতে পারে।

নিন্মে আরও কিছু কিছু কারণগুলো দেওয়া হলো :

(ক) একাধিক ব্যক্তির সাথে যৌন সম্পর্ক থাকলে এই রোগ হওয়ার ঝুঁকি বেড়ে ।
(খ) যৌনকর্মীর সাথে যৌন সম্পর্ক থাকলে।
(গ) অনিরাপদ যৌন সম্পর্ক করলে।
(ঘ) যৌন মিলনের সময় ব্যবহৃত বস্তু অস্বাস্থ্যকর হলে।
(ঙ) খৎনা করানো হয়নি এমন ব্যক্তির।
(চ) পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা বজায় না রাখলে।

আরও পড়ুন –  পুরুষদের ক্ল্যামিডিয়া STD এর রোগ লক্ষণ, কারণ ও হোমিওপ্যাথি ঔষধ

চ্যানক্রোয়েড (Chancroid) ক্লিনিকাল বৈশিষ্ট্য :
(১) আপনার যৌনাঙ্গের ত্বকে উত্থাপিত ও বেদনাদায়ক বাম্প।
(২) ন্যাকড়াযুক্ত নরম প্রান্তযুক্ত আলসার যা এই বাম্পগুলি থেকে বিস্তার লাভ করে।
(৩) ঘাগুলিতে লাল এবং চকচকে ত্বক।
(৪) পুঁজ এবং সংক্রামক তরল ফুটো।
(৫) বৃহত্তর এলাকায় এই ঘা ছড়িয়ে পড়ে।
(৬) প্রস্রাব করার সময় অথবা যৌন মিলনের সময় ব্যথা করে।
(৭) আলসারগুলির একটি নরম কেন্দ্র থাকে যা সংজ্ঞায়িত, অথবাতীক্ষ্ণ, প্রান্ত সহ ধূসর থেকে হলুদ-ধূসর।

আরও পড়ুন –   জরায়ু ইনফেকশনের কারণ, লক্ষণ, করনীয় কী?

চ্যানক্রোয়েড (Chancroid) যে কারণে ঝুঁকি বৃদ্ধি পায় :

(ক) একাধিক ব্যক্তির সাথে যৌন সম্পর্ক থাকলে এই রোগ হওয়ার ঝুঁকি বেড়ে ।
(খ) যৌনকর্মীর সাথে যৌন সম্পর্ক থাকলে।
(গ) অনিরাপদ যৌন সম্পর্ক করলে।
(ঘ) যৌন মিলনের সময় ব্যবহৃত বস্তু অস্বাস্থ্যকর হলে।
(ঙ) খৎনা করানো হয়নি এমন ব্যক্তির।
(চ) পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা বজায় না রাখলে।

চ্যানক্রোয়েডর ক্লিনিকাল মূল্যায়ন :
কখনও কখনও সংস্কৃতি বা পলিমারেজ চেইন প্রতিক্রিয়া (PCR)।

আরও পড়ুন –   যোনির ক্যান্ডিডায়াসিস বা সংক্রমণের ৫টি হোমিওপ্যাথিক ঔষধ

চ্যানক্রোয়েড চিকিৎসায় ব্যবহারিত হোমিওপ্যাথিক ঔষধ :

(১) মার্ক সল (Mercurius Sol) : মার্ক সল প্রাথমিক সিফিলিসের ক্ষেত্রে চ্যাঙ্কারের চিকিৎসার জন্য ব্যবহার করা হয়। মার্ক সল প্রয়োজনের ক্ষেত্রে লিঙ্গে চ্যাঙ্কার একক অথবা একাধিক ছোট হতে পারে। চ্যাঙ্কেসের নিচের দিকে চিজি এবং উল্টানো লাল প্রান্ত রয়েছে। চ্যানক্রে ব্যথা হতে পারে এবং তা থেকে সহজেই রক্তপাত হতে পারে। চ্যান্সার থেকে পুঁজ অথবা হলুদ ভ্রূণ স্রাব হতে পারে। হাঁটার সময় ইনগুইনাল অঞ্চল বেদনা করে। চাপে ইনগুইনাল গ্রন্থিতে ব্যথা করে।

(২) সিনাবারিস (Cinnabaris) : সিফিলিসের ক্ষেত্রে লাল, ফোলা চ্যাংক্রে সিফিলিসের ক্ষেত্রে সিনাবারিস অত্যান্ত উপকারী। চ্যাঙ্কারের প্রান্তগুলি শক্ত এবং উঁচু। যে ক্ষেত্রে সিনাবারিস ব্যবহারিত হয় সেক্ষেত্রে লিঙ্গের মাঝখানে চ্যাঙ্কারটি অবস্থিত। চ্যাঙ্কারটি বেশিরভাগ সময় নিমজ্জিত থাকে।

(৩) কালি আয়োডাটাম (Kali Iodatum) : কালি আয়োডাটাম গভীর চ্যান্সার সহ সিফিলিসের জন্য অত্যান্ত সহায়ক। চ্যাঙ্কারের প্রান্তগুলি শক্ত, পাতলা স্রাব উপস্থিত হতে পারে যার একটি আপত্তিকর গন্ধ থকে। চ্যানক্রে ধীরগতির সাপুরেশনের প্রবণতা থাকতে পারে, গ্লানস লিঙ্গ ফুলে গেছে।

(৪) মার্ক কর (Merc Cor) : মার্ক কর চেনক্রের জন্য নির্দেশিত হয় যা নরম। প্রান্তগুলি গাঢ় লাল। চ্যাঙ্কার বেদনাদায়ক ও সহজেই রক্তপাত হয়। চ্যাঙ্কার থেকে পাতলা পুঁজ নির্গত হতে পারে। চ্যাঙ্কারের চারপাশের অংশ তাপে ফুলা থাকে।

(৫) সিফিলিয়াম (Syphilinum) : সিফিলিয়াম হলো সেকেন্ডারি সিফিলিসের জন্য অত্যান্ত উপকারী ওষুধ যা ত্বকে বিশিষ্ট ফুসকুড়ি। ফুসকুড়ি কপাল, চিবুক, বুকের সামনে এবং বাহুতে বিশিষ্ট। সূক্ষ্ম আঁশ একটি অতিরিক্ত এটি থেকে বন্ধ খোসা, আবার কিছু কিছু ক্ষেত্রে মাথার উপর থেকে পা পর্যন্ত তামা-রঙের ম্যাকুলে দেখা যায়। রাতে শরীরের বিভিন্ন অংশে কামড়ের সংবেদন অনুভূত হতে পারে। এর পাশাপাশি অতিরিক্ত মাথাব্যথার সঙ্গে জ্বরও থাকে। শরীর ঢেকে রাখার ইচ্ছা ভীষণ কিন্ত ঠান্ডা। ক্ষুধা থাকে না। গলা ব্যথা, স্ফীত গলবিল, গলায় আলসারও দেখা দিতে পারে।

আরও পড়ুন –    সহবাস কালে যৌনি জ্বালাপোড়া, ব্যথার কারণ ও এর প্রতিকার

(৬) নাইট্রিক অ্যাসিড (Acid Nitric) : নাইট্রিক অ্যাসিড সেকেন্ডারি সিফিলিসের জন্য ব্যবহারিত হয় এবং ত্বকের বিস্ফোরণে ত্বকে কাঁটা ও চুলকানি থাকে। এটি যৌনাঙ্গ এবং মলদ্বারে বৃদ্ধির মতো আঁচিলের জন্যও নির্দেশিত। বৃদ্ধিগুলি বড়, ঝাঁকুনিযুক্ত ও প্রায়শই বৃন্তযুক্ত। তাদের মধ্যে বিশিষ্ট ‍Sticking এবং Pricking আছে. এগুলি স্পর্শ করলে বেদনাদায়ক। আবার কখনও কখনও তাদের ধোয়ার সময় রক্তপাত হয়।

(৭) ফসফরাস (Phosphorus) : সিফিলিসের ক্ষেত্রে চুল পড়ার অভিযোগ ফসফরাস একটি মূল্যবান ওষুধ। ফসফরাস প্রয়োজনের ক্ষেত্রে চুল পড়ার পরিমাণ অত্যধিক। চুল পড়া সাধারণ বা প্যাচযুক্ত। মাথার ত্বক শুষ্ক। মাথার ত্বকেও একটি উত্তপ্ত সংবেদন অনুভূত হয়। মাথার ত্বকে সহিংস চুলকানি থাকে।

(৮) থুজা ওসি (Thuja Occi) : সিফিলিসের ক্ষেত্রে আঁচিলের মতো বৃদ্ধির চিকিৎসার জন্য থুজা একটি অত্যান্ত মুলবান ওষুধ। পুরুষদের মধ্যে, এই বৃদ্ধি গ্লানস, লিঙ্গ, পেরিনিয়ামে দেখা যায়। বিশেষ করে হাঁটার সময় তার ব্যথা হতে পারে। মহিলাদের ক্ষেত্রে ল্যাবিয়া, ভালভা, যোনিতে দেখা দেয় ও বৃদ্ধি হতে পারে। তাতে হুল ফোটাতে ব্যথা হতে পারে এবং রক্তপাতও হতে পারে। থুজার প্রয়োজনে পুরুষ ও মহিলাদের মলদ্বারেও আঁচিল থাকতে পারে। এই আঁচিল বেদনাদায়ক এবং স্পর্শ সংবেদনশীল।

(১০) ফাইটোলাক্কা (Phytolacca) : তৈরি করা হয় ফাইটোলাক্কা নামক একটি উদ্ভিদ থেকে যা সাধারণত পোক-মূল অথবা লাল কালি উদ্ভিদ নামে পরিচিত। এই উদ্ভিদের প্রাকৃতিক ক্রম হলো চযুঃড়ষধপপধপবধব। ফাইটোলাক্কা সিফিলিসের জন্য নির্দেশিত, গলা ব্যাথা পরিচালনা করার জন্য। গলা কালো, বেদনাদায়ক, কাঁচা, রুক্ষ ও শুষ্ক। টনসিল নীলাভ অথবা গাঢ় বেগুনি রঙের হয়। গিলে ফেল্লে বেদনা করে। সেই ব্যথা গলা থেকে কান পর্যন্ত প্রসারিত হতে পারে। গলায় জ্বলন্ত এবং স্মার্টিং অনুভূত হয়েছে। গলায় স্ক্র্যাপিং সংবেদন এবং উত্তেজনা অনুভূত হয়। টনসিলে আলসার দেখা দেয়।

আরও পড়ুন –   এইচ আর – ৫১ (মহিলাদের হরমোন নিয়ন্ত্রণে কার্যকর)

যারা স্যাঙ্করয়েড (Chancroid) ঝুঁকির মধ্যে আছে :
লিঙ্গ : পুরুষদের মধ্যে এই রোগ নির্ণয়ের সম্ভাবনা সাধারণত ০২ গুণ এবং মহিলাদের ১২ গুণ বেশি।

জাতি: শ্বেতাঙ্গদের এ রোগ নির্ণয়ের গড়পড়তা সম্ভাবনা বেশি রয়েছে। কৃষাঙ্গদের এই রোগ নির্ণয়ের সম্ভাবনা ০৪ গুণ, হিস্প্যানিকদের ০৩ গুণ আর অন্যান্য জাতিদের ০১ গুণ কম।

প্রশ্ন উত্তর :

প্রশ্ন : স্যাঙ্করয়েড এই রোগের ক্ষত কোথায় দেখা যায়?
উত্তর: এই রোগ সাধারণত মহিলাদের যোনীপথের বাহিরের দিকে এবং পুরুষদের যৌনাঙ্গের ভাঁজে শীর্ষভাগে এ ক্ষত দেখা যায়।

প্রশ্ন : স্যাঙ্করয়েডের  ক্ষততে কি ব্যথা হয়?
উত্তর: সাধারণত মহিলাদের এই ক্ষত থেকে কোন ব্যথা হয় না এমনকি অনেক সময় এই ক্ষত চোখেও পড়ে না। তবে পুরুষদেও ক্ষেত্রে এই ক্ষত থেকে আলসার হতে পারে এবং এই আলসার অত্যান্ত যন্ত্রণাদায়ক হয়।

প্রশ্ন : স্যাঙ্করয়েড  এই রোগ কি সচরাচর হয়ে থাকে?

উত্তর: গরম আবহাওয়ায় এ রোগ সাধারণত বেশি হতে দেখা যায়। তবে দিন দিন এ রোগের সমস্যা বেড়েই চলেছে। এ রোগ দেখা দিলেই দ্রæত চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া উচিত।


আজকের আলোচনা এখানেই শেষ করলাম। আশা করি আপনারা বুঝতে পেরেছেন। নতুন কোনো স্বাস্থ্য টিপস নিয়ে হাজির হবো অন্য দিন। সবাই সুস্থ্য, সুন্দর ও ভালো থাকুন। নিজের প্রতি যতœবান হউন এবং সাবধানে থাকুন। যদি এই পোস্টটি আপনার ভালো লাগে এবং প্রয়োজনীয় মনে হয় তবে অনুগ্রহ করে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না যেন।

আরোগ্য হোমিও হল এডমিন :  এই ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্যগুলো কেবল স্বাস্থ্য সেবা সম্বন্ধে জ্ঞান আহরণের জন্য। অনুগ্রহ করে রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথিক পরামর্শ নিয়ে ওষুধ সেবন করুন। চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ সেবনে আপনার শারীরিক বা মানসিক ক্ষতি হতে পারে। প্রয়োজনে, আমাদের সহযোগিতা নিন। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ। এই ওয়েব সাইটটি কে কোন জেলা বা দেশ থেকে দেখছেন “লাইক – কমেন্ট” করে জানিয়ে দিন। যদি ভালো লাগে তবে “শেয়ার” করে আপনার বন্ধুদের জানিয়ে দিন।


এ জাতীয় আরো খবর.......
Design & Developed BY FlameDev