শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ০৬:৫১ অপরাহ্ন

অ্যাডাল-২৫ (অনিদ্রা ড্রপস)

আরোগ্য হোমিও হল / ১৩৮ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশ কালঃ মঙ্গলবার, ৫ মার্চ, ২০২৪, ৫:৩৭ অপরাহ্ন
অ্যাডেল নং – ২৫ (অনিদ্রা ড্রপস)

Adel -25 (Insomnia Drops)।
অ্যাডাল – ২৫ (অনিদ্রা ড্রপস)।
আরোগ্য হোমিও হল এ সবাইকে স্বাগতম। আশা করছি, সবাই ভালো আছেন। আজ আমরা এখানে আলোচনা করবো “অ্যাডাল ২৫ (অনিদ্রা ড্রপস)” কম্বিনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধ নিয়ে আজকে জনবো, এটা সবার জানা জরুরী! তো আর কথা নয় – সরাসরি মূল আলোচনায়।
প্রস্তুত প্রণালী : জার্মান কম্বিনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধ।
ব্যবহার : অ্যাডাল -২৫ সোমকুপিন ড্রপসটি  অনিদ্রার জন্য (বিরক্ত ঘুম)। অনিদ্রা এবং ঘুমাতে অসুবিধার জন্য  ব্যবহার করা হয়।
অ্যাডাল – ২৫ সোমকুপিন ড্রপসের ভূমিকা :   অনিদ্রা সাধারণত ঘুমের ব্যাধিগুলির মধ্যে একটি। এসম্যায় প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ শতাংশ ব্যাক্তি অনিদ্রা ভোগেন। অনিদ্রা বলতে মূলত ঘুমের অক্ষমতাকে বোঝায়। অনিদ্রা, বিষণ্নতা, স্মৃতিশক্তির সমস্যা, বিরক্তি, হৃদরোগের ঝুঁকি ইত্যাদি সমস্যায় ভোগেন। এটি ক্লান্তি বোধ দিনের সময় সঠিক ভাবে কাজ করার ক্ষমতাকে প্রভাবিত করে। লক্ষণগুলি হল রাতে বা খুব তাড়াতাড়ি জাগ্রত হওয়া, ঘুমাতে অসুবিধা হওয়া, দিনের বেলায় তন্দ্রা ও ক্লান্তি, উদ্বেগ, বিরক্তি, টেনশন মাথাব্যথা, বিষণ্নতা, মানসিক চাপ, একাগ্রতার অভাব ইত্যাদি। কাজের পরিবর্তনের কারণে অনিদ্রা হয়। সময়সূচী, খারাপ ঘুমের অভ্যাস, হরমোনের পরিবর্তন, গভীর রাতে খাওয়া ইত্যাদি।
অ্যাডাল – ২৫ সোমকুপিন ড্রপসের মিশ্রণ :
(১) অরম ক্লোরাটাম নাট্র 4x (Aurum Chloratum Natr 4x)
(২) আর্জেন্টাম নাইট্রিকাম 4X (Argentum Nitricum 4x)
(৩) অ্যাভেনা স্যাটিভা 4x (Avena sativa 4x)।
(৪) এসচস্কল্টজিয়া ক্যালিফ 6x (Eschscholtzia calif 6x)।
(৪) কফিয়া 12x  (Coffea 12x)।
(৫) ল্যাকটুকা ভিরোসা 6x (Lactuca virosa 6x)।
(৬) স্ট্যাফিসাগ্রিয়া 6x (Staphisagria 6x)।
(৭) জিঙ্কাম ভ্যালেরিয়ানিকাম 12x (Zincum valerianicum 12x)।

আরও পড়ুন –  কেন্ট ১৯ (অনিদ্রা রোগে কার্যকর)

অ্যাডাল -২৫ সোমকুপিন ড্রপসের কার্যকারিতা :
(ক) অরম ক্লোরাটাম নাট্র (Aurum chloratum natr) :  এটি মিউকাস মেমব্রেন এবং স্নায়ুতন্ত্রকে প্রভাবিত করে। এটি মিউকাস মেমব্রেনের প্রদাহ এবং সংক্রমণের বিরুদ্ধে কাজ করে। এটি আবেগ ও মেজাজকে সম্বোধন করে যার ফলে ঘুমহীনতা হয়। রোগী রাতে ব্যাপকভাবে জেগে থাকতে পারে। বিষণ্ণতা এবং বিষণ্ণতার থেকে মুক্তি দেয়।
(খ) আর্জেন্টাম নাইট্রিকাম (Argentum Nitricum):  এটি স্নায়ুতন্ত্র ও মিউকাস মেমব্রেনকে প্রভাবিত করে। রৌপ্যের শক্তিশালী অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল শক্তি শ্লেষ্মা ঝিল্লির সংক্রমণ ও প্রদাহের বিরুদ্ধে অত্যন্ত কার্যকরী। এই পদার্থটি মেজাজ এবং আবেগকেও সম্বোধন করে যা নিদ্রাহীনতায় বেশ অবদান রাখতে পারে।
(গ) অ্যাভেনা স্যাটিভা 4x (Avena Sativa 4x) :  “ভবিষ্যতের ভয়” অথবা স্নায়বিক ক্লান্তি ও দুশ্চিন্তায় ভুগছেন এমন রোগীদের জন্য প্রযোজ্য। এটি ঘুম এবং শান্ত এজেন্ট হিসাবে কাজ করে।  যদিও এই নিরাময়কারী ঔষধটি পুষ্টির মূল্যও সরবরাহ করে, এটি আরও গুরুত্বপূর্ণভাবে অ্যালকালয়েড অ্যাভেনিন ধারণ করে যা একটি শক্তিশালী প্রশমক প্রভাব প্রদান করে।
(ঘ) এসচস্কল্টজিয়া ক্যালিফ (Eschscholtzia Calif ):  এটি শিথিল প্রভাব প্রদান করে।

আরও পড়ুন –  র‌্যাক্স নং- ৪৮ (অনিদ্রা)

(ঙ) কফিয়া (Coffea) :  কফি চা ও তামাক জাতীয় অত্যধিক সেবনের ফলে সৃষ্ট অনিদ্রা দূর করে।  এটি রক্তসঞ্চালনের দুর্বলতা দূর করে যা অনিদ্রার দিকে পরিচালিত করে।
(চ) ল্যাকটুকা ভিরোসা (Lactuca Virosa) :  এটি শিথিল প্রভাব প্রদান করে এবং স্প্যাস্টিক (পেশীর খিঁচুনি দ্বারা প্রভাবিত) পরিপাক এবং শ্বাসতন্ত্রের চিকিৎসা করে। একটি আরামদায়ক ঘুমের প্রভাব প্রদান করে।
(ছ) স্ট্যাফিসাগ্রিয়া (Staphisagria) :  এটি ছিন্নভিন্ন স্নায়ুর ভারসাম্য বজায় রাখতে সাহায্য করে। এটি যৌন অত্যধিক উত্তেজনা, তরল ক্ষয়, যৌন উত্তেজনা, অন্ত্রের কর্মহীনতা, প্রোস্টাটাইটিস (প্রোস্টেট গ্রন্থির প্রদাহ), রিউম্যাটিক নিউরালজিয়া এবং ক্যান্সারজনিত ব্যথা অন্ত্রের কর্মহীনতা ইত্যাদি থেকে স্নায়বিক ব্যাঘাত নিয়ন্ত্রণ করে।
(জ) জিঙ্কাম ভ্যালেরিয়ানিকাম  (Zincum Valerianicum) : স্নায়বিক অনিদ্রা এবং মোটরগত (পেশীর নড়াচড়ার সাথে সম্পর্কিত) অস্থিরতার চিকিত্সা করে।  এই সংমিশ্রণ স্নায়বিক অনিদ্রা এবং মোটর অস্থিরতা প্রতিরোধ করে, এবং দস্তা দ্বারা নিয়ন্ত্রিত শরীরের বিভিন্ন ফাংশন উন্নত করে। এটি শরীরের কার্যকারিতাও নিয়ন্ত্রণ করে।

আরও পড়ুন –  এন – ১৪ (অনিদ্রা ও নার্ভের ড্রপস)

অ্যাডাল – ২৫ ঔষধ সেবন বিধি : প্রাপ্ত বয়স্করা জন্য ১৫ থেকে ২০ ফোঁটা, শিশুরা ৭ থেকে ১০ ফোঁটা ঔষধ ১/৪ কাপ পানিতে মিশিয়ে দিনে ৩ বার অথবা রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসকের পরামর্শে সেবন করতে হবে।
চিকিৎসকের কিছু পরারর্শ : ওষুধ খাওয়ার সময় মুখের কোনো তীব্র গন্ধ যেমন কফি, পেঁয়াজ, শিং, পুদিনা, কর্পূর, রসুন ইত্যাদি এড়িয়ে চলুন। খাবার/পানীয়/অন্য কোনো ওষুধ এবং অ্যালোপ্যাথিক ওষুধের মধ্যে অন্তত আধা ঘণ্টার ব্যবধান রাখুন।
শর্তাবলী : কম্বেনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধগুলি সাধারণত লক্ষণে উপর ভিভি করে ব্যবহার করা হয়। মনে রাখবেন হোমিওপ্যাথিক সদৃশ্য বিধান একটি চিকিৎসা ব্যবস্থা, বেশি লক্ষণে সঙ্গে মিলিলে তবেই ব্যবহার যোগ্য। তা না হলে অবস্থার উপর নির্ভর করে ফলাফল পরিবর্তিত হতে পারে।
পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া : এই ঔষধ সেবনে কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই।
সতর্কতা : সুস্ক ও শীতল স্থানে সুগন্ধ-দুগন্ধ, আলো-বাতাস থেকে দুরে, শিশুদের নাগালের বাহিরে রাখুন।
বায়ো কম্বিনেশন ২৫ (অম্লতা, পেট ফাঁপা ও বদহজম)
আরোগ্য হোমিও হল এডমিন : আজকের আলোচনা এখানেই শেষ করলাম। আশা করি আপনারা বুঝতে পেরেছেন। নতুন কোনো স্বাস্থ্য টিপস নিয়ে হাজির হবো অন্য দিন। এই ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্যগুলো কেবল স্বাস্থ্য সেবা সম্বন্ধে জ্ঞান আহরণের জন্য। অনুগ্রহ করে রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথিক পরামর্শ নিয়ে ওষুধ সেবন করুন। চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ সেবনে আপনার শারীরিক বা মানসিক ক্ষতি হতে পারে। প্রয়োজনে, আমাদের সহযোগিতা নিন।  এই ওয়েব সাইটটি কে কোন জেলা বা দেশ থেকে দেখছেন “লাইক – কমেন্ট” করে জানিয়ে দিন। যদি ভালো লাগে তবে “শেয়ার” করে আপনার বন্ধুদের জানিয়ে দিন।  সবাই সুস্থ্য, সুন্দর ও ভালো থাকুন। নিজের প্রতি যত্নবান হউন এবং সাবধানে থাকুন।  আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।


এ জাতীয় আরো খবর.......
Design & Developed BY FlameDev