বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ০৪:৩৮ পূর্বাহ্ন

অ্যাডাল-২২ (কিডনি ও পিত্তথলি পাথর)

আরোগ্য হোমিও হল / ১৩৪ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশ কালঃ বৃহস্পতিবার, ৭ মার্চ, ২০২৪, ৫:৫০ অপরাহ্ন

Adel -22 (Kidney and Gallbladder Stones)।
অ্যাডাল -২২ (কিডনি ও পিত্তথলি পাথর)।
আরোগ্য হোমিও হল এ সবাইকে স্বাগতম। আশা করছি, সবাই ভালো আছেন। আজ আমরা এখানে আলোচনা করবো অ্যাডাল -২২ (কিডনি ও পিত্তথলি পাথর) কম্বিনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধ নিয়ে আজকে জনবো, এটা সবার জানা জরুরী! তো আর কথা নয় – সরাসরি মূল আলোচনায়।
প্রস্তুত প্রণালী : জার্মান কম্বিনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধ।
ব্যবহার : অ্যাডাল -২২ (রেনেলিক্স) ড্রপসটি কিডনি এবং পিত্তথলির রোগীদের ঘন ঘন প্রস্রাব, দুর্গন্ধযুক্ত প্রস্রাব, প্র¯্রাবে জ্বালাপোড়া, পিঠে ও মাজা ব্যথায় চিকিৎসার সহাযক হিসাবে ব্যবহার করা হয়।
অ্যাডাল  – ২২ (রেনেলিক্স) ড্রপসটি লক্ষণ : কিডনি কোষে জমা হওয়া কনক্রিমেন্ট (প্রোটিন কনক্রিশন, ক্যালকুলি) ও টক্সিন নির্গমনে সহায়তা করে যা কিডনির স্বাভাবিক কার্যকারিতা পুনরুদ্ধার করতে সহায্য করে। এটি বার্ধক্য ও অসুস্থতার প্রতিরোধে সাহায্য করে যা বিপাকীয় প্রক্রিয়াগুলিকে দুর্বল করে, যার ফলে হাইপারটোনিয়া, ডায়াবেটিস অথবা বাত এবং বাত রোগের মতো প্রাকন্যান্সারস অবস্থা থেকে মুক্তি দেয়। এই প্রতিকারটি দীর্ঘস্থায়ীভাবে অসুস্থ রোগীদের বিষাক্ত অবরোধ নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে।

আরও পড়ুন –  এইচ আর – ৭৭ (কিডনি ব্যথায় কার্যকর)

অ্যাডাল – ২২ (রেনেলিক্স) ড্রপসটি লক্ষণ কম্বিনেশন :
(১) অ্যাসিডাম বেনজোইকাম 6x (Ácido Benzoico 6x)।
(২) অ্যাসিডাম নাইট্রিকাম 6X (Acidum Nitricum 6x)।
(৩) এপিস মেলিফিকা 4x (Apis Melifica 4x)।
(৪) বারবেরিস ভালগারিস 6x (Barberry Vulgaris 6x)।
(৫) ক্যাপসেলা বার্সা পাস্তোরিস 4x (Capsella Baroa Pastoris 4x)।
(৬) কোকাস ক্যাকটি 4x (Coccus Cacti 4x)।
(৭) কোলচিকাম অটামনাল 4x (Colchicum Autumnal 4x)।
(৮) সলিডাগো ভারগাউরিয়া 6x (Solidago Virgaurea 6x)।

আরও পড়ুন –  কেন্ট ০৯ (কিডনি ও ব্ল্যাডার পাথর রোগে কার্যকর)

অ্যাডাল – ২২ (রেনেলিক্স) ড্রপসটির কার্যকারিতা :
(ক) অ্যাসিডাম বেনজোইকাম (Ácido Benzoico) :  ইউরিক অ্যাসিড, ডায়াথেসিসকে সমাধান করে যা প্রায়শই একটি শক্তিশালী রিউম্যাটিক বোঝা সহহৃৎপিণ্ডকে দুর্বল করে এমন পরিস্থিতি দূর করতে সাহায্য করে।
(খ) অ্যাসিডাম নাইট্রিকাম (Acidum Nitricum) :  মিউকাস মেমব্রেন ও মূত্রনালীর সংক্রমণের চিকিৎসা করে। এটি ইউরোলজিক্যাল পাথরের কাজগুলিকে নিয়ন্ত্রণ করে এবং ঘন ঘন প্রস্রাব ও দুর্গন্ধযুক্ত প্রস্রাবের সাথে জ্বালাপোড়া সহ লক্ষণগুলিকে দূর করে।
(গ) এপিস মেলিফিকা (Apis Melifica) :  জয়েন্টের শোথ এবং সংক্রামক চিকিৎসা করে। এটি শ্লেষ্মা ঝিল্লি, সংযোগকারী টিস্যু, অন্ত্র, সিরাস মেমব্রেন, মূত্রাশয় ও কিডনিকে উদ্দীপিত করে এবং ডিটক্সিফাই করে।

আরও পড়ুন –  কেন্ট ১১ (লিভার এবং গল ব্লাডার রোগে কার্যকর)

(ঘ) বারবেরিস ভালগারিস (Barberry Vulgaris) :  লিভার এবং ইউরোলজিক্যাল পথের প্যাথোজেনিক সম্যাাসার সমাধান করে। এটি সিস্টেম থেকে ইউরিক অ্যাসিডের নির্গমনকে সমর্থন করে। লিভার এবং অগ্ন্যাশয়ের নেশা কমায় – গাউট এবং ডায়াবেটিসের চিকিৎসায় ব্যবহার হয় ।
(ঙ) ক্যাপসেলা বার্সা পাস্তোরিস (Capsella Baroa Pastoris) :  কিডনি ও গলব্লাডারে পাথর তৈরির দ্বারা প্রতিফলিত বিপাকীয় অপ্রতুলতার চিকিৎসায় সহায়তা করে। এই ঔষধটি প্রদত্ত শক্তিশালী উদ্দীপক প্রভাব এমনকি ক্যাথেটারকে অপ্রয়োজনীয় ব্যবহার করে ।
অ্যাডাল – ২২ ঔষধ সেবন বিধি : প্রাপ্ত বয়স্করা জন্য ১৫ থেকে ২০ ফোঁটা, শিশুরা ৭ থেকে ১০ ফোঁটা ঔষধ ১/৪ কাপ পানিতে মিশিয়ে দিনে ৩ বার অথবা রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসকের পরামর্শে সেবন করতে হবে।

আরও পড়ুন –   এন – ০৭ (লিভার ও গলব্লাডার ড্রপস)

চিকিৎসকের কিছু পরারর্শ : ওষুধ খাওয়ার সময় মুখের কোনো তীব্র গন্ধ যেমন কফি, পেঁয়াজ, শিং, পুদিনা, কর্পূর, রসুন ইত্যাদি এড়িয়ে চলুন। খাবার/পানীয়/অন্য কোনো ওষুধ এবং অ্যালোপ্যাথিক ওষুধের মধ্যে অন্তত আধা ঘণ্টার ব্যবধান রাখুন।
শর্তাবলী : কম্বেনেশন হোমিওপ্যাথি ঔষধগুলি সাধারণত লক্ষণে উপর ভিভি করে ব্যবহার করা হয়। মনে রাখবেন হোমিওপ্যাথিক সদৃশ্য বিধান একটি চিকিৎসা ব্যবস্থা, বেশি লক্ষণে সঙ্গে মিলিলে তবেই ব্যবহার যোগ্য। তা না হলে অবস্থার উপর নির্ভর করে ফলাফল পরিবর্তিত হতে পারে।
পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া : এই ঔষধ সেবনে কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই।
সতর্কতা : সুস্ক ও শীতল স্থানে সুগন্ধ-দুগন্ধ, আলো-বাতাস থেকে দুরে, শিশুদের নাগালের বাহিরে রাখুন।
বায়ো কম্বিনেশন ২৫ (অম্লতা, পেট ফাঁপা ও বদহজম)
আরোগ্য হোমিও হল এডমিন : আজকের আলোচনা এখানেই শেষ করলাম। আশা করি আপনারা বুঝতে পেরেছেন। নতুন কোনো স্বাস্থ্য টিপস নিয়ে হাজির হবো অন্য দিন। এই ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্যগুলো কেবল স্বাস্থ্য সেবা সম্বন্ধে জ্ঞান আহরণের জন্য। অনুগ্রহ করে রেজিষ্টার্ড হোমিওপ্যাথিক পরামর্শ নিয়ে ওষুধ সেবন করুন। চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ সেবনে আপনার শারীরিক বা মানসিক ক্ষতি হতে পারে। প্রয়োজনে, আমাদের সহযোগিতা নিন।  এই ওয়েব সাইটটি কে কোন জেলা বা দেশ থেকে দেখছেন “লাইক – কমেন্ট” করে জানিয়ে দিন। যদি ভালো লাগে তবে “শেয়ার” করে আপনার বন্ধুদের জানিয়ে দিন।  সবাই সুস্থ্য, সুন্দর ও ভালো থাকুন। নিজের প্রতি যত্নবান হউন এবং সাবধানে থাকুন।  আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।


এ জাতীয় আরো খবর.......
Design & Developed BY FlameDev